ব্রেকিং নিউজ

চালু হয়নি অটোচালকদের ‘হ্যালো’ অ্যাপ

প্রকাশ : ১০ মার্চ ২০১৮, ০০:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঘোষণা দিলেও পহেলা মার্চ থেকে চালু হয়নি সিএনজির রাইড শেয়ারিং অ্যাপ ‘হ্যালো’। এই সেবা চালুর জন্য চুক্তিবদ্ধ প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, চালকরা মিটারে যাওয়া এবং সেখান থেকে কমিশন দিতে রাজি না হওয়ার কারণেই সেবাটি চালু করা যায়নি। নতুন লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়েছে পয়লা বৈশাখ।

অ্যাপভিত্তিক গাড়ি ও মোটরসাইকেল ভাড়ার সেবা ‘উবার’, ‘পাঠাও’-এর ‘ঝড়ে’ সিএনজিচালকরা অনেকটাই বেকায়দায়। মিটারে যেতে না চাওয়া, ইচ্ছামতো গন্তব্যে না যাওয়াসহ নানা নৈরাজ্যের কারণে অটোরিকশার প্রতি ?মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে যাত্রীদের একটি বড় অংশ। আর এতে ভাড়া কমে যাওয়ায় বিপাকে পড়ার পর সিএনজিচালিত অটো মালিকরা ‘উবার’ ‘পাঠাও’-এর মতোই অ্যাপে সেবা দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন। এ জন্য ‘টপ আই আই’ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন সিএনজিচালিত অটোরিকশা মালিকরা। গত ১৬ জানুয়ারি এই প্রতিষ্ঠানটি সংবাদ সম্মেলন করে ১ মার্চ থেকে রাজধানীতে অ্যাপে অটোরিকশা চালুর ঘোষণা দেয়।

‘টপ আই আই’-এর মুখপাত্র অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী সেদিন বলেছিলেন, ‘হ্যালো-এর মাধ্যমে রাজধানীতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার যে হয়রানি ছিল এর সমাধান হবে। সরকারি নীতিমালার ভিত্তিতেই এই অ্যাপ চলবে, সেখানে যে ভাড়া নির্ধারণ করা হবে সেভাবেই মিলবে এই সেবা।’ কিন্তু নির্ধারিত তারিখের এক সপ্তাহেরও বেশি পার হয়ে গেলেও হ্যালো অ্যাপে কোনো সিএনজি অটোরিকশা পাওয়া যায়নি।

‘হ্যালো’র বিপণন বিভাগের পরিচালক রাকিবুল হাছান জানান, চালকদের সঙ্গে ভাড়ার বিষয়টি সমঝোতা না হওয়ায় সেবাটি চালু করা হয়নি।

সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী, ভাড়া নেওয়ার কথা জানিয়েই সেবাটি চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। তখন চালকদের সঙ্গে কথা না বলেই এই কথা জানানো হয় কি নাÑ এমন প্রশ্নে রাকিবুল বলেন, ‘তাদের সঙ্গে আমাদের আলাপ আলোচনা সমঝোতায় পৌঁছেছে, আগামী পহেলা বৈশাখ হ্যালো পুরোদমে চালু হবে।’

রাকিবুল বলেন, ‘আমরা চেয়েছি যাত্রীদের কাছ থেকে সরকার নির্ধারিত ভাড়া আদায় করতে। আমাদের কমিশন ড্রাইভারদের কাছ থেকে নেব, কিন্তু সেটি তারা দিতে রাজি ছিল না। পরে অবশ্য তাদের আমরা বোঝাতে সক্ষম হয়েছি, নিয়মতান্ত্রিকভাবে চললে আগের চেয়ে আয় ভালো হবে।’

টপ আই আই-এর কর্মকর্তা বলেন, ‘পুরোদমে চালু না হলেও কয়েকজন চালক অ্যাপে সিএনজি অটোরিকশা চালাচ্ছেন। এতে তাদের ট্রিপের পাশাপাশি আয়ও বেশি হচ্ছে। এতে সেই চালকরা সন্তুষ্ট। তাদের অভিজ্ঞতা আমরা অন্য চালকদেরকে জানিয়েছি। আশা করি, আগামী পহেলা বৈশাখ আমরা আমাদের হ্যালো পুরোপুরে চালু করতে পারব।’

এর মধ্যে অ্যাপে গাড়ি ভাড়ার ধাক্কায় বিপাকে পড়ার পর গত ২০ নভেম্বরেই ঢাকা ও চট্টগ্রাম জেলা সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের ঢাকা জেলা কমিটির সদস্য সচিব সাখাওয়াত হোসেন দুলাল অ্যাপে সিএনজি চালানোর কথা জানান।

রাজধানীতে যাত্রীর ইচ্ছামতো গন্তব্যে যাওয়া এবং মিটার অনুযায়ী, ভাড়া নেওয়ার শর্তে চালু হয়েছিল সিএনজিচালিত অটোরিকশা। কিন্তু প্রথম দিন থেকেই শর্ত অমান্য করে নিজের ইচ্ছামতো গন্তব্যে যাওয়া, নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত দাবি করার কারণে যাত্রীদের বিরক্তির কারণ হয় অটোরিকশা চালকরা। দুই দফা বাড়িয়ে ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ করার পরও তাদের অজুহাতের শেষ নেই। মিটারের বদলে ইচ্ছামতো ভাড়ায় যাত্রীদেরকে যেতে বাধ্য করত তারা। এ কারণে তাদের প্রতি জনক্ষোভ ছিল স্পষ্ট।

"