মায়ের অপরাধে মেয়েকে স্কুলে যেতে মানা!

রেজিস্ট্রেশন বন্ধ : শিক্ষাজীবন অনিশ্চিত

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

গৌরীপুরে মায়ের অপরাধের জের ধরে ছাত্রী নুসরাত জাহান স্বর্ণাকে স্কুলে যেতে মানা করেছেন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল হক। স্বর্ণা এ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। গত সোমবার স্বর্ণা স্কুলে গেলে প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘তোর আর স্কুলে আসার দরকার নেই, রেজিস্ট্রেশন করারও প্রয়োজন নেই।’ এতে স্বর্ণার শিক্ষাজীবন নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। তবে প্রধান শিক্ষক এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

স্বর্ণার বাড়ি গৌরীপুর পৌর শহরের ইসলামাবাদ মহল্লায়। তার বাবা শহীদুল ইসলাম খান ব্যবসায়ী। মা নাছিমা আক্তার গৃহিণী। গত শনিবার স্বর্ণার মা নাছিমা আক্তার প্রতিবেশী নারী সেলিনাকে পরকীয়ার অপবাদ দিয়ে লোমহর্ষক নির্যাতন করেন। এ ঘটনায় মামলা হলে স্বর্ণার মা ও নানিকে গ্রেফতার করে পুলিশ কোর্টে প্রেরণ করে। তবে স্বর্ণার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ না থাকায় তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এদিকে, থানা থেকে ছাড়া পেয়ে গত সোমবার স্বর্ণা নবম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশনের জন্য স্কুলে গেলে একজন শিক্ষক স্বর্ণাকে প্রধান শিক্ষকের কাছে নিয়ে গিয়ে বলেন, এই মেয়েকে পুলিশ ধরে নিয়ে গিয়েছিল। এ কথা শুনে প্রধান শিক্ষক স্বর্ণাকে স্কুল থেকে বের করে দেন।

এ বিষয়ে স্বর্ণা বলেন, গত সোমবার রেজিস্ট্রেশনের জন্য স্কুলে গেলে অ্যাসিস্ট্যান্ট হেড স্যার আমাকে দেখিয়ে হেড স্যারকে বলেন, এই পত্রিকার মেয়েটা, ওকে পুলিশ ধরে নিয়ে গিয়েছিল। এ কথা শোনার পর হেড স্যার আমাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, এই মেয়ে স্কুলে আসছে কেন, ওকে বল স্কুল থেকে চলে যেতে। এরপর আমি স্যারের কাছে জানতে চাই কবে স্কুলে আসব। জবাবে স্যার বলেন, তোর আর স্কুলে আসা লাগবে না। রেজিস্ট্রেশনের বিষয় জানতে চাইলে স্যার বলেন, তোর রেজিস্ট্রেশন করাও লাগবে না।

স্বর্ণার মামা মোস্তাকিম বলেন, আমার জানামতে, স্বর্ণা কোনো অপরাধ করেনি। তবে ধারণা করছি, তার মায়ের অপরাধের জের ধরেই প্রধান শিক্ষক স্বর্ণাকে রেজিস্ট্রেশন করতে দেয়নি। স্কুল থেকে বের করে দিয়েছে। এরপর থেকে স্বর্ণা বাসায় সারাক্ষণ কান্নাকাটি করছে। তার পড়াশোনা ও স্কুলে যাতায়াত বন্ধ রয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক এনামুল হক সরকার বলেন, স্বর্ণা আমার স্কুলের শিক্ষার্থী। সে কোনো অপরাধ করলে আইন তার শাস্তি দিবে। ওই দিন স্কুলে দেরী করে আসায় স্বর্ণাকে শাসন করা হয়েছে। তবে আমি তাকে স্কুল থেকে বের করে দিয়েছি ও রেজিস্ট্রেশন করতে দেইনি এই অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

"