মতবিনিময় সভায় ড. কাজী খলীকুজ্জমান

হালদা নদীও দখলের শিকার

প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের ( পিকেএসএফ) চেয়ারম্যান ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেছেন, সারা দেশের নদী দখল সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। কিছু স্বার্থান্বেষী মহল নিজেদের সম্পদ বাড়াতে গিয়ে অসংখ্য মানুষের সমস্যার সৃষ্টি করছে। হালদা নদীও দখলদারদের কবলে চলে যাচ্ছে। তাছাড়া নদী দূষণ ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। নদী দখলদার ও দূষণকারীদের আইনের আওতায় আনার জন্য জনপ্রতিনিধি, সচেতন জনগণ ও প্রশাসনকে যৌথভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা দরকার। প্রকল্পের কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রকল্পগুলো চলমান থাকা দরকার।

গত বৃহস্পতিবার হাটহাজারীর গড়দুয়ারা ইউনিয়নের নয়াহাট সংলগ্ন এলাকার আইডিএফ কার্যালয় চত্বরে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। আইডিএফ-পিকেএসএফের যৌথ উদ্যেগে এই মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন পিকেএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল করিম। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, হালদা নদীতে দূষণ ও বালু উত্তোলন বন্ধ করতে হবে। এক সময় বিশেষ করে ১৯৪৫ সালে এ নদী থেকে ৫ হাজার কেজি ডিম পাওয়া যেত। কিন্তু গত কয়েক বছর থেকে নদীতে মা মাছের ডিম ছাড়ার পরিমাণ একেবারে কমে গিয়ে ছিল। গত বছর পিকেএসএফ ও আইডিএফের প্রকল্পের কারণে এ নদী থেকে ডিম আহরণের পরিমাণ ১৬৮০ কেজিতে উন্নীত হয়েছে। জনগণকে সচেতন করতে পারলে ডিম আহরণের পরিমাণ আরো বাড়বে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রফেসর ড. জাহেদা আহমদ, পিকেএসএফের উপপরিচালক (প্রশাসন) ড. জসিম উদ্দিন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তার উননেছা শিউলী, গড়দুয়ারা ইউপি চেয়ারম্যান সরোয়ার মোরশেদ তালুকদার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে দেন আইডিএফের নির্বাহী পরিচালাক ও প্রতিষ্ঠাতা জহিরুল আলম।

শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন মো. আবদুল্লাহ। অধ্যাপক শহিদুর রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন হালদা নদী সংরক্ষণ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের নবনির্বাচিত সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলী। পরে অতিথিরা গড়দুয়ারা নয়াহাট সংলগ্ন নদীর নির্মিত ঘাটের ও সোলার চালিত নৌকার উদ্বোধন করেন।

"