কে জিতবেন গোল্ডেন বল

প্রকাশ : ১৩ জুলাই ২০১৮, ১১:০১ | আপডেট : ১৩ জুলাই ২০১৮, ১৫:৫৩

আমির হোসেন

বিশ্বকাপ শেষের পথে। আর মাত্র দুইটি ম্যাচ। এরপরই পর্দা নামবে বিশ্বকাপের ২১তম আসরের। এরই মধ্যে দুই ফাইনালিস্ট দল নির্ধারিত হয়ে গেছে। তাদের মধ্যেই যেকোনো একটি দল চ্যাম্পিয়ন হবে। তবে এখনো ফয়সালা হয়নি গোল্ডেন বলের বিষয়টি। কে পাবেন এবারের আসরের গোল্ডেন বল? কার হাতে শোভা পাবে সেটি? আসলে এ বিষয়ে নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যায় না। কেবল পরিসংখ্যান ও পারফরম্যান্সের আলোকে আন্দাজ করা যায়। মূলত যে দুইটি দল ফাইনাল খেলে তাদের মধ্যে যদি ভালো কোনো পারফরমার থাকেন তাহলে তার হাতেই ওঠে গোল্ডেন বল।

যেমনটা চার বছর আগে লিওনেল মেসির হাতে উঠেছিল। তার আগে উরুগুয়ের হয়ে সেমিফাইনাল পর্যন্ত দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা ডিয়োগো ফোরলানের হাতে উঠেছিল। ২০০৬ সালে রানার্স-আপ দল ফ্রান্সের জিনেদিন জিদান জিতেছিলেন গোল্ডেন বল। তার আগের আসরে প্রথম কোনো গোলরক্ষক হিসেবে গোল্ডেন বল পেয়েছিলেন রানার্স-আপ জার্মানির গোলরক্ষক অলিভার কান।

এবারের বিশ্বকাপে গোল্ডেন বল জয়ের দৌড়ে এগিয়ে আছেন ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক লুকা মডরিচ, ফ্রান্সের তরুণ ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপ্পে, বেলজিয়ামের অধিনায়ক ইডেন হ্যাজার্ড ও কেভিন ডি ব্রুইনি।

লুকা মডরিচ : ক্রোয়েশিয়ার অধিনায়ক লুকা মডরিচ গোল্ডেন বল জয়ের দৌড়ে সবার চেয়ে এগিয়ে আছেন। তিনি গ্রুপ পর্বে দুই গোল করেছেন। একটি গোলে সহায়তা করেছেন। গ্রুপ পর্বে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে বাঁকানো শটে দুর্দান্ত একটি গোল করেছেন তিনি। পুরো ম্যাচে প্রভাব বিস্তার করে খেলেছেন। অবশ্য শেষ ষোলোতে ডেনমার্কের বিপক্ষে তিনি পেনাল্টি মিস করেছেন। তা না হলে তার গোলের সংখ্যাটা বাড়তে পারত। রাশিয়ার বিপক্ষেও দারুণ খেলেছেন তিনি। ভালো খেলেছেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালেও। তার নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো ক্রোয়েশিয়া উঠেছে বিশ্বকাপের ফাইনালে। ৬ ম্যাচে ৬০৪ মিনিট খেলেছেন। ৬৩ কিলোমিটার দৌড়েছেন। গোল্ডেন বল তার হাতে উঠলেই পূর্ণতা পাবে।

কিলিয়ান এমবাপ্পে : ফ্রান্সের তরুণ তুর্কি কিলিয়ান এমবাপ্পেও গোল্ডেন বল জয়ের দৌড়ে আছেন। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে শেষ ষোলোর ম্যাচে বল নিয়ে তার গতি নজর কেড়েছে সবার। সেই ম্যাচে জোড়া গোল করে তিনি একাই বিদায় করে দেন আর্জেন্টিনাকে। এরপর কোয়ার্টার ফাইনাল ও সেমিফাইনালেও তিনি ফুটবলবোদ্ধাদের নজর কেড়েছেন। তাকে ভবিষ্যৎ পেলে বলা হচ্ছে। তার গতি প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগের খেলোয়াড়দের বুকে কাঁপন ধরিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। তার ঠাণ্ডা মাথার ফিনিশিং ম্যাচ জেতাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বিশ্বকাপের উদীয়মান খেলোয়াড় হওয়ার দৌড়েও এগিয়ে আছেন তিনি। ৬ ম্যাচে ৪৪৪ মিনিট খেলে ৩ গোল করেছেন তিনি।

ইডেন হ্যাজার্ড : বেলজিয়ামের ইডেন হ্যাজার্ডও গোল্ডেন বল জয়ের দাবিদার। রেড ডেভিলসদের অধিনায়ক তিনি। তার নেতৃত্বে ৩২ বছর পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠেছিল বেলজিয়াম। তিনি ২ গোল করার পাশাপাশি ২ গোলে অ্যাসিস্টও করেছেন। তার ড্রিবলিং, বল দখলে রাখার দক্ষতা, বল পায়ে ক্ষিপ্রতা ফুটবলপ্রেমীদের মুগ্ধ করেছে। ব্রাজিলের বিপক্ষে তার পারফরম্যান্স ছিল অসাধারণ। ব্রাজিলকে হারিয়ে ৩২ বছর পর সেমিফাইনালে উঠতে বেলজিয়ামকে দারুণ সাহায্য করেছেন তিনি। ফ্রান্সের বিপক্ষেও তিনি ভালো খেলেছেন। যদিও হেরে সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে তাদের। ৫ ম্যাচে ৪২৮ মিনিট খেলেছেন তিনি। ৪৬.৬ কিলোমিটার দৌড়েছেন।

কেভিন ডি ব্রুইনি : হ্যাজার্ডের পাশাপাশি গোল্ডেন বল জয়ের দৌড়ে আছেন বেলজিয়ামের কেভিন ডি ব্রুইনিও। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলা এই তারকা ৫ ম্যাচে ৪৫০ মিনিট খেলেছেন। বল নিয়ে ২৩.১ কিলোমিটার দৌড়েছেন। গোল করেছেন ১টি। গোলে সহায়তা করেছেন ১টি। মোট পাস দিয়েছেন ২৭৮টি। অবশ্য দলকে ফাইনালে তুলতে পারেননি। ফ্রান্সের বিপক্ষে হেরে সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছেন তারা।

এদের বাইরে গোল্ডেন বল জেতার সম্ভাব্য খেলোয়াড়দের মধ্যে আছেন অ্যান্তনিও গ্রিজমান, হুগো লরিস, এনগোলো কান্তে ও ইভান পেরিসিক।

পিডিএসও/হেলাল