ম্যাগুয়েরের গোলে এগিয়ে ইংল্যান্ড

প্রকাশ | ০৭ জুলাই ২০১৮, ২০:০৩ | আপডেট: ০৭ জুলাই ২০১৮, ২০:৩৪

অনলাইন ডেস্ক

ম্যাগুয়েরের গোলে ১-০ তে এগিয়ে গেলো ইংল্যান্ড। ম্যাচের ৩০ মিনিটের মাথায় এই গোলটি হয়।

ইংল্যান্ড ও সুইডেন ভোলগা নদীর পাশের শহর সামারায় এবারের বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে। বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হয়েছে সেমি ফাইনালে ওঠার এই লড়াই। শনিবারের এই ম্যাচটা দুই দলেরই জন্য বিশেষ। খেলায় যে দলই জিতুক না কেন তারা দেশকে বহুকাল পর এনে দেবে শেষ চারে খেলার যোগ্যতা অর্জনের তৃপ্তি। ইংল্যান্ড ও সুইডেন শেষবার বিশ্বকাপের সেমিতে খেলেছে তাও তো প্রায় দুই যুগ আগের ঘটনা। এই ম্যাচের জয়ী দল দিনের পরের কোয়ার্টারে মুখোমুখি রাশিয়া-ক্রোয়েশিয়ার খেলার জয়ীদের সাথে সেমি ফাইনালে খেলবে।

ইংলিশরা শেষ ষোলর একাদেশ কোনো পরিবর্তন আনেনি। তবে সুইডেন লারসন ও ক্রাফথকে একাদশে এনেছে সভেনসন ও লাস্টিগের জায়গায়।

সুইডেন শেষবার বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে খেলেছে ১৯৯৪ সালে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্বকাপে। সেবার তারা তৃতীয় স্থান নিয়ে শেষ করেছিল আসর। আর ১৯৬৬ এর বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড শেষবার ফিফা বিশ্বকাপের সেমি ফাইনালে খেলেছে ১৯৯০ ইতালি বিশ্বকাপে। চতুর্থ হয়েছিল সেবার ইংলিশরা। সুতরাং, বোঝাই যাচ্ছে কি এক জীবন-মরণ লড়াই দুই দলেরই জন্য, সাথে নতুন ইতিহাস লেখার প্রেরণা।

ইংলিশরা কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে টাইব্রেকারে কলম্বিয়াকে হারিয়ে। আর সুইডিশরা শেষ ষোলতে জিতেছে সুইজারেল্যান্ডের বিপক্ষে। এই দুই দল ইতিহাসে ২৩বার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে। সমান সাতটি করে জয় দুই দলের, ড্র ৯টিতে। ১৯২৩ সালে স্টকহোমে প্রথম তারা মুখোমুখি হয়েছিল প্রথমবারের মতো। ইংল্যান্ড জিতেছিল ৪-২ গোলে। শেষবার ২০১২ সালের ১৪ নভেম্বর সুইডেন ও ইংল্যান্ডের দেখা হয়েছিল। সেবার ৪-২ গোলে জিতেছিল সুইডিশরা। জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ ওই ম্যাচের একটি গোলের জন্য ফিফা পুসকাস অ্যাওয়ার্ড জিতেছিলেন।

পিডিএসও/রিহাব