রেকর্ডের আরেক নাম সাকিব

প্রকাশ : ২৫ জুন ২০১৯, ০৮:৩৯ | আপডেট : ২৫ জুন ২০১৯, ১০:৫৬

সাহিদ রহমান অরিন

ডেভিড ওয়ার্নার ও সাকিব আল হাসানের লড়াইটা ভালোই জমে উঠেছে। একবার টাইগার অলরাউন্ডার শীর্ষে উঠছেন তো তাকে টপকে যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। কাল নিজেদের সপ্তম ম্যাচে দারুণ হাফ সেঞ্চুরি করে বিশ্বকাপে রান সংগ্রহের ক্ষেত্রে ফের শীর্ষে উঠে গেছেন সাকিব।

শুধু তাই-ই নয়, গতকাল আফগানদের বিপক্ষে ম্যাচে জোড়া কীর্তিও গড়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের সুপারম্যান। প্রথমে বিশ্বকাপে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১ হাজার রান করেছেন, এরপর বিষমাখা ঘূর্ণিতে মাত্র ২৯ রান খরচায় শিকার ধরেছেন ৫টি, যা কি না চলতি আসরের ও নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং ফিগার! আর এর মধ্য দিয়ে বিশ্বকাপের একই ম্যাচে ব্যাট হাতে অর্ধশত ও বল হাতে ৫ উইকেটপ্রাপ্তিতে রেকর্ড বইয়ের স্বর্ণালি পাতায় নিজের নাম তুলেছেন সাকিব। যে পাতায় এর আগে কেবল ভারতের বিশ্বকাপ জয়ী নায়ক যুবরাজ সিংহের নাম উঠেছিল। বিরল রেকর্ডের দিনে স্বাভাবিকভাবে সোমবারও ম্যাচসেরার পুরস্কার লুফে নিয়েছেন সাকিব। সেই পুরস্কারপ্রাপ্তিতেও গড়েছেন রেকর্ড। এ নিয়ে চলতি বিশ্বকাপে বাংলাদেশের জেতা তিন ম্যাচের সব কটিতেই ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়ের স্বীকৃতি পেয়েছেন সাকিব।

এর আগে সাকিব ৫১ রানের ইনিংস খেলার পথে ওয়ার্নারকে ছাড়িয়ে রান সংগ্রাহকদের তালিকার শীর্ষে উঠে গেছেন। বিশ্বকাপে এখন তার সামগ্রিক সংগ্রহ ৪৭৫ রান। ৭ ম্যাচে তিনটি হাফ সেঞ্চুরি ও দুটি সেঞ্চুরিতে এই রান করেন তিনি। আর ওয়ার্নার ৬ ম্যাচে ৪৪৭ রান করে দ্বিতীয় স্থানে আছেন। আর তৃতীয় স্থানে থাকা জো রুটের সংগ্রহ ৪২৪ রান।

চলতি বিশ্বকাপের শুরু থেকেই দারুণ উজ্জ্বল সাকিবের ব্যাট। এখন পর্যন্ত সব কটি ম্যাচেই অসাধারণ নৈপুণ্য দেখিয়েছেন। কাল আফগানদের বিপক্ষে টিকে থাকার লড়াইয়েও সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছেন, সঙ্গে ফিরে পেয়েছেন পুরোনো বোলিং ফর্ম। তাতে শীর্ষ উইকেট শিকারিদের ঘাড়েও হুট করেই নিঃশ্বাস ফেলতে শুরু করেছেন।

ক্রিকেট মহাযজ্ঞে এখন পর্যন্ত ২৭ ম্যাচ খেলে ১০১৬ রান করেছেন সাকিব। এর আগে বাংলাদেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ৬ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হার না মানা ১২৪ রানের অবিস্মরণীয় ইনিংস উপহারের দিনে। দেশের জার্সি গায়ে এখন পর্যন্ত ২০৪ ম্যাচে ৯টি সেঞ্চুরি ও ৪৫টি হাফ সেঞ্চুরিতে ৬১৯৩ রান করেছেন তিনি। সাকিবের আগে বাংলাদেশের হয়ে ৬ হাজার ছুঁয়েছেন ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল।

এখানেই শেষ নয়। এই বিশ্বকাপেই ওয়ানডে ফরম্যাটে নিজের ২৫০তম উইকেট শিকার করেন ৩২ বছর বয়সি সাকিব। এর মধ্য দিয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটে দ্রুততম ৬ হাজার রান করার পাশাপাশি ২৫০ উইকেট নেওয়ার বিশ্ব রেকর্ড গড়েন বাংলাদেশের এই সোনার ছেলে।

চলতি বিশ্বকাপে সাকিবের ঝুলিতে জমা পড়েছে আরো কয়েকটি রেকর্ড। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে ২০০তম ম্যাচ খেলার মাইলফলক ছুঁয়েছেন এই বিশ্বকাপেই। এর আগে দেশের পক্ষে দুজন ২০০ বা তার চেয়ে বেশি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন, মাশরাফি বিন মর্তুজা ও মুশফিকুর রহিম। মাশরাফি ২১৩তম এবং মুশফিকুর রহিম ২১১তম ওয়ানডে ম্যাচ খেলছেন কাল। এ ছাড়া পঞ্চপাণ্ডবের অপর দুজন তামিম ইকবাল ১৯৯ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৮১টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন জাতীয় দলের হয়ে।

ক্রিকেটের সর্ববৃহৎ আসরে বাঘের গর্জনে সাকিবের এই অর্জন ব্রিটিশ মুলুকেও বিস্ময় ছড়িয়েছে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে সাকিবকে ‘বিশ্বকাপের অবিসংবাদিত সেরা’র তকমা দিয়েছে দেশটির শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম ‘দ্য টেলিগ্রাফ’। যে ব্রিটিশ মিডিয়া আজীবন বিদেশি ক্রীড়াবিদদের সমালোচনায় মুখর, তারাই কি না ‘ছোট দেশের বড় তারকাকে’ এভাবে মূল্যায়ন করেছে! এই অর্জনটাও ১৬ কোটির গর্ব সাকিবের জন্য কম কিসে?

পিডিএসও/হেলাল