বিশ্বকাপের প্রাইজমানি ঘোষণা

প্রকাশ : ১৭ মে ২০১৯, ২০:০২

অনলাইন ডেস্ক

 

এবারের বিশ্বকাপে যে আলাদা কিছু চমক থাকবে, তা আগেই ঘোষণা দিয়ে রেখেছিলেন বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসি। কিন্তু সেটি যে শুধু বলার জন্যই বলা ছিল, এমনটি নয়। তার প্রমাণ মিলছে ধীরে ধীরে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার বিশ্বকাপকে দেবে ভিন্ন মাত্রা। তেমনিভাবে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর জন্যও থাকছে অর্থের ঝনঝনানি।

বিশ্বকাপের জন্য ১০ মিলিয়ন ডলার তথা ৮৫ কোটি টাকার প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে আইসিসি। পুরো আসরজুড়ে পুরষ্কারস্বরুপ খরচ হবে বিপুল পরিমাণ এ অর্থ।

আগামী ৩০ মে থেকে মাঠে গড়াবে বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসর। কেনিংটন ওভালে উদ্বোধনী ম্যাচে লড়বে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা। ৪৬ দিনে ৪৮ ম্যাচের এ বিশ্বকাপের পর্দা উঠবে ১৪ জুলাই, লর্ডসে। বিশ্বকাপের এই আয়োজনকে ঘিরে তাই নানা চমক রেখেছে আইসিসি।

বিশ্বকাপে যে দল ফাইলালে চ্যাম্পিয়ন হয়, সে দলের জন্য স্বভাবতই ৪ মিলিয়ন ডলার বা ৩৪ কোটি টাকার প্রাইজমানি বরাদ্দ থাকছে চ্যাম্পিয়ন দলের জন্য। রানারআপ দল পাবে ঠিক এর অর্ধেক। অর্থাৎ ২ মিলিয়ন ডলার বা ১৭ কোটি টাকা।

বিপুল অঙ্কের পুরষ্কার থাকছে বাকি দলগুলোর জন্যও। সেমিফাইনালে বাদ পড়া দুই দলকে দেওয়া হবে ৮ লাখ ডলার বা ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা করে মোট ১৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা। এ ছাড়া বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে বাদ পড়া ছয় দলকে এক লাখ ডলার বা ৮৫ লাখ টাকা করে দেওয়া হবে মোট ৫ কোটি দশ লাখ টাকা।

পুরষ্কার থাকছে লিগপর্বে ম্যাচ জেতার জন্যও। প্রথম পর্বের প্রতিটি ম্যাচের জয়ী দলকে দেওয়া হবে ৪০ হাজার ডলার তথা ৩৪ লাখ টাকা। এতে করে প্রথম পর্বে জয়ী দলগুলোর পেছনে মোট খরচ হবে ১৫ কোটি ৩০ লাখ টাকা। তবে ব্যক্তিগত পুরষ্কার তথা প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ, প্লেয়ার অব দ্য টুর্নামেন্ট কিংবা অন্যান্য কোনো পুরষ্কারের অর্থ প্রকাশ করেনি আইসিসি। সেসব যোগ করলে পুরষ্কারের অর্থমূল্য বাড়বে আরও অনেক বেশি।

পিডিএসও/রি.মা