রাত পোহালেই আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল মহারণ

প্রকাশ : ০২ জুলাই ২০১৯, ২১:০৪

অনলাইন ডেস্ক

নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন তিতে। ব্রাজিল কোচের কারণটা ভিন্ন হলেও তার মতো বুকে ধুকপুকানি নিয়ে হয়তো কয়েকটা দিন কাটছে ফুটবল ভক্তদের। কারণ মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ‘সুপার ক্লাসিকো’। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা যোগ দিচ্ছে মহারণে, মঞ্চ কোপা আমেরিকার প্রথম সেমিফাইনাল।

ক্রিকেট বিশ্বকাপের ডামাডোলের মাঝেই উত্তেজনা ছড়াচ্ছে এই ম্যাচ। বেলো হরিজোন্তোর এস্তেদিও মিনেইরোতে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। বাংলাদেশ সময় বুধবার ভোর সাড়ে ৬টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

মাঠে নামার আগে দুই দলের ওপর রয়েছে চাপ। ব্রাজিলের নেই নেইমার। ফিলিপে কৌতিনিয়ো ও গ্যাব্রিয়েল জেসুসদের নিয়ে হাঁপাতে হাঁপাতে সেমিফাইনালে উঠেছে তারা। পেরুর বিপক্ষে গ্রুপের শেষ ম্যাচে ৫-০ গোলের জয় ছাড়া বলার মতো পারফরম্যান্স তাদের নেই এই আসরে। ২০১১ ও ২০১৫ সালের কোয়ার্টার ফাইনালের মতো এবারও তারা শেষ আটে পেয়েছিল প্যারাগুয়েকে। আগের দুইবারের মতো এবারও টাইব্রেকারে গিয়েছিল ম্যাচটি, কিন্তু এবার আর দুর্ভাগ্যকে বরণ করে নিতে হয়নি। প্যারাগুয়ানদের হারিয়ে এক যুগ পর প্রথমবার সেমিফাইনালে সেলেসাওরা।

ব্রাজিলকে চাপে রাখছে তাদের হোম কন্ডিশন। এই মুহূর্তে সমর্থকদের কাছ থেকে ইতিবাচক সমর্থনের বিকল্প নেই তিতের সামনে। ব্রাজিল কোচ অবশ্য আগে থেকেই ভক্ত-সমর্থকদের প্রাণঢালা সমর্থন চেয়ে রেখেছেন। তারই পরিণতিতে তো খাদের কিনারায় থাকা ব্রাজিল শেষ ম্যাচে উড়িয়ে দিয়েছিল পেরুকে। অবশ্য এই মিনেইরোতে একটা ট্র্যাজেডিও হয়েছিল ৫ বছর আগে। বেলো হরিজোন্তোর এই মাঠে বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে ৭-১ গোলে তাদের বিধ্বস্ত করে সেলেসাওদের কান্নার সাগরে ভাসিয়েছিল জার্মানি।

শিরোপা স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে ব্রাজিলের মুখোমুখি মেসির আর্জেন্টিনাএবার মঞ্চ ভিন্ন। কিন্তু ভয় তো থাকছেই। সেই সেমিফাইনাল, প্রতিপক্ষ আর্জেন্টিনা।  চাপে থাকছেও আর্জেন্টিনাও। প্রথম কারণ হলো লিওনেল মেসি। তিনটি কোপা আমেরিকা ও একটি বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলেও জাতীয় দলের জার্সিতে জেতা হয়নি শিরোপা। ২০০৭ সালে এই কোপা আমেরিকার ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে হেরেছিল ২০ বছর বয়সী মেসির আর্জেন্টিনা। আর গত দুটি কোপা আমেরিকা ও বিশ্বকাপ ফাইনালে উঠেও শিরোপা জেতা হয়নি তার। বিশ্বমঞ্চে ২০১৪ সালে এই ব্রাজিলেই জার্মানদের কাছে ভেঙেছিল তাদের স্বপ্ন। আর চিলির কাছে দুইবার কোপা আমেরিকা ফাইনালে হেরে কাটেনি শিরোপা খরা। আরেকটি কারণ ২৬ বছর ধরে শিরোপা জেতা হয়নি তাদের।

অবশ্য ফেভারিট হিসেবেই আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে ব্রাজিল। কারণ দর্শক-সমর্থক থাকবে তাদেরই বেশি। তাছাড়া সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সও দারুণ। তিতের অধীনে ব্রাজিল এই দ্বৈরথে এগিয়ে ২-১ এ। ২০১৬ সালের নভেম্বরে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এই মিনেইরোতে আর্জেন্টিনাকে ৩-০ গোলে হারায় স্বাগতিকরা।

দুই দলের মুখোমুখি লড়াই হয়েছে ১০৯টি। এর মধ্যে ৪৫টি জিতেছে ব্রাজিল, হেরেছে ৩৯টি আর ড্র ২৫ ম্যাচ। তবে ওসব পরিসংখ্যান নিয়ে ভাবতে চান না তিতে। এমনকি প্রায় তিন বছর আগে এই মিনেইরোতে আর্জেন্টিনা বধ নিয়েও নয়, ‘আর্জেন্টিনাকে ওই ম্যাচে হারানোর পরও আমরা এগিয়ে আছি বলা যাবে না। সবসময় বর্তমান মুহূর্তই আসল।’

পিডিএসও/রি.মা