স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখার ম্যাচ আজ

প্রকাশ : ১১ জুন ২০১৯, ০৮:৪৩

আরিফ সোহেল

বিশ্বকাপের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে আজ জয়ের বিকল্প নেই ‘টিম’ বাংলাদেশের। সেজন্য সবটাই করতে প্রস্তুত টাইগাররা। প্রয়োজনে একাদশে পরিবর্তনের আভাস টিম ম্যানেজমেন্টের। লিটন দাসের সঙ্গে ফিরতে পারেন পেসার রুবেল হোসেনও।

আজ ব্রিস্টলের কাউন্টি গ্রাউন্ডে স্নায়ু-উত্তেজক ম্যাচে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৩টায়। তিন ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার পাঁচে শ্রীলঙ্কা। সমান ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে আটে বাংলাদেশ। শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করেও পরের দুই ম্যাচে জয়ের মুখ দেখেনি বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে পরের ৬ ম্যাচের অন্তত ৪টিতে জয় প্রয়োজন বাংলাদেশের। কিন্তু ম্যাচের আগে প্রকৃতির পূর্বাভাস ‘বৃষ্টি’ খলনায়ক হয়ে দেখা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে ফেভার পাবে শ্রীলঙ্কাই।

টাইগার স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের টার্গেট নিয়েই কথা বলেছেন, ‘শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় পাওয়াটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে গেছে আমাদের জন্য। টুর্নামেন্টে ভালোভাবে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচে আমাদের জিততেই হবে। সামনের ম্যাচ নিয়ে ম্যানেজমেন্ট পরিকল্পনা করবে, কীভাবে আরো ভালো করা যায়।’

এই ম্যাচে জয়ের জন্য তামিমের ব্যাটিংটা বড্ড প্রয়োজন হবে। বিশ্বকাপের আগে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন বাংলাদেশের অন্যতম ব্যাটিং স্তম্ভ এই ড্যাসিং ওপেনার। অথচ বিশ্বকাপের শুরু থেকে অনেকটাই নিস্প্রভ তার ব্যাট। ইতিহাসও বলছে, বিশ্বকাপটা তার ঠিকঠাক হয়নি; হয় না। কিন্তু এবার তাকে ঘিরে স্বপ্ন জাগানিয়া প্রত্যাশা ছিল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তামিমও ছন্দে ফিরতে মরিয়া। ব্রিস্টলে নেমে পড়েছেন কঠোর অনুশীলনে। নিজেকে ফিরে পেতে নেটে ব্যাটিংও করেছেন দুই ঘণ্টারও বেশি। তাকে সহযোগিতা করেছেন ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি।

টিম ম্যানেজমেন্টের দুটি পরিবর্তনের মধ্যে একটি মোটামুটি নিশ্চিতই। জানা গেছে, প্রথম ৩ ম্যাচে খেলা মোহাম্মদ মিঠুনের জায়গায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লিটন দাস খেলছেন। বিশ্বকাপে কোনো ম্যাচ না খেললেও আয়ারল্যান্ডে তিন জাতির সিরিজ এবং ভারতের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছেন লিটন। আরেকটি পরিবর্তনের কথাও হচ্ছে বোলিংয়ে। বৃষ্টিকবলিত সিমিং কন্ডিশনের কথা মাথায় রেখে চতুর্থ পেসার হিসেবে রুবেল হোসেনকে দেখা যেতে পারে। তাকে জায়গা দিতে একাদশের বাইরে চলে যেতে হতে পারে অফ স্পিনার মিরাজকে।

এদিকে, ক্রিকেটের জাত শত্রু বৃষ্টির কারণে এর আগে লন্ডন ও কার্ডিফে বাংলাদেশের অনুশীলন করা সম্ভব হয়নি। বৃষ্টি হলে ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়ে পয়েন্ট ভাগ হবে। যেমনটা এরই মধ্যে পাকিস্তানের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কা পেয়েছে। কার্ডিফের মতো ব্রিস্টলেও বাংলাদেশের সুখস্মৃতি রয়েছে। এই ভেন্যুতে ২০১০ সালে মাশরাফির অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ইংল্যান্ডকে ৫ রানে হারিয়েছিল বাংলাদেশ।

যদিও প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশের চেয়ে জয়-পরাজয়ের সমীকরণে অনেক এগিয়ে। ৪৫ ম্যাচে মাত্র ৭টিতে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। অবশ্য সর্বশেষ ম্যাচে জয়ের অনুপ্রেরণা বাংলাদেশকে উজ্জীবিত করবে। গেল বছরের সেপ্টেম্বরে দুবাইয়ে এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশ। ম্যাচে মুশফিকের সেঞ্চুরিতে ২৬১ রান তুলেছিল বাংলাদেশ। জবাবে মাত্র ১২৪ রানেই পত্রপাট বিদায় শ্রীলঙ্কার।

অন্যদিকে, শ্রীলঙ্কার জন্য রয়েছে বড় দুঃসংবাদ। এই ম্যাচে তারা পাচ্ছে না আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয়ের নায়ক ডানহাতি পেসার নুয়ান প্রদীপকে। লঙ্কান এই বোলার রোববার অনুশীলনে বোলিং করার সময় ডান হাতে চোট পেয়েছেন। তার কনিষ্ঠার হাড় সরে গেছে এবং কেটেও গেছে। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের (এসএলসি) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘প্রদীপের সেরে উঠতে এক সপ্তাহ সময় লাগবে।’ নেটে কুশল পেরেরার ব্যাটিংয়ের সময় চোট পেয়েছেন তিনি।’ ৩২ বছর বয়সী প্রদীপ আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৩১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচটি ৩৪ রানে জিতেছিল শ্রীলঙ্কা।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে কোনো রকমে জয়; নিউজিল্যান্ডে গোত্তা; আর পাকিস্তানের বিপক্ষে এক পয়েন্ট বৃষ্টি কল্যাণে। তাই স্বাভাবিকভাবেই শ্রীলঙ্কার সেমিফাইনাল লাইনচ্যুত। ফলে এই ম্যাচে মরিয়া হয়ে নামবে শ্রীলঙ্কাও।

ক্রিকেটীয় পরিভাষায় সমীকরণ; সহজ-সরল নয়। এর সঙ্গে গভীরভাবে মিশে থাকে আবেগ এবং বাস্তবতা। হারার পরও বাংলাদেশের দর্শকরা প্রতি ম্যাচেই গ্যালারিতে লাল-সবুজের পতাকা ওড়াচ্ছেন। কার্ডিফের পরাজয়ের গল্প তুলে রেখে এবার দর্শকরা ছুটছেন ব্রিস্টলে। র‌্যাঙ্কিং, শক্তিতে পিছিয়ে থাকা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়ের বিকল্প ভাবছেন না ভক্তরা। ছুটছেন তারা জয়ের ধারায় আবারও বাংলাদেশকে ফিরে পেতে।

পিডিএসও/হেলাল