ক্রাইস্টচার্চে বর্বরোচিত হামলায় তীব্র নিন্দা মাশরাফির

প্রকাশ | ১৫ মার্চ ২০১৯, ১৯:৫৭

অনলাইন ডেস্ক

এক নিমেষে শেষ হয়ে যেতে পারতো বাংলাদেশের ক্রিকেট স্বপ্ন। ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেনটন ট্যারেন্টের হামলায় ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদে নিহত হয়েছেন ৩ বাংলাদেশিসহ ৪৯ জন।

শুক্রবার জুমার নামাজ চলাকালীন এমন বর্বর হামলা চালান ওই যুবক।
জুমার নামাজ বাদ দিতে চাননি বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রাও। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের সংবাদ সম্মেলন শেষ হতে মিনিট কয়েক দেরি হওয়ায় বেঁচে গেছে গোটা দল। নইলে হারাতে হতো তাদেরও।

এমন ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে বিশ্বজুড়ে। বাদ যায়নি দেশ-বিদেশের সাবেক বর্তমান ক্রিকেটাররাও।
তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলে দেশে ফিরেছেন বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। এরপর তিন টেস্ট খেলতে বাংলাদেশ দল অবস্থান করছে নিউজিল্যান্ডে। শনিবার সকাল থেকে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে শুরু হবার কথা ছিল ম্যাচটি।
 
তার আগেই ঘটে গেল ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা। যে কারণে বাতিল করা হয়েছে শেষ ম্যাচটি। সতীর্থদের এমন খারাপ সময়ে উদ্বিগ্ন মাশরাফিও। দেশে থাকলেও মনটা ঠিকই পড়েছিল ক্রাইস্টচার্চে।

ন্যক্কারজনক ঘটনার পর নিজের ফ্যান পেজে তিনি লেখেন, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় তিনজন বাংলাদেশিসহ বহু মানুষের নিহত হবার খবর পাচ্ছি! আমি এমন সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা জানাই। ঘটনাটি শোনার পর থেকে আমাদের ক্রিকেটারদের নিয়ে খুবই দুশ্চিন্তায় ছিলাম। আল্লাহ’র অশেষ রহমতে আমাদের ক্রিকেটাররা বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রেহাই পেয়েছেন। তারা নিরাপদে আছেন। শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে আর একটু আগে মসজিদে গেলে শোকাবহ পরিস্থিতি তৈরি হতে পারতো! আল্লাহ সহায় হয়েছেন। আশা করছি, আমাদের ক্রিকেটাররা দ্রুতই নিরাপদে দেশে ফিরে আসবেন।

পিডিএসও/রি.মা