সবাইকে ছাড়িয়ে মিরাজ

প্রকাশ : ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:০৩

ক্রীড়া প্রতিবেদক

মেহেদী হাসান মিরাজ। বয়সভিত্তিক ক্রিকেট থেকে উঠে আসা এই অলরাউন্ডার টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের বোলিং বিভাগের অন্যতম সেরা স্পিনার। ১৮তম টেস্টে এসেই ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো এক টেস্টে ১০ উইকেট শিকারের কীর্তি গড়েছেন তিনি। কাল নিজেকে আরেকবার ছাড়িয়ে গেলেন তিনি। মিরপুর টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১১৭ রানে ১২ উইকেট তুলে নিয়েছেন মিরাজ।

সিরিজ জয়ের ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে অলআউট হওয়ার আগে বাংলাদেশ করে ৫০৮ রান। টাইগারদের সংগ্রহটাকে আরো হিমালয়তুল্য করে ফেলেন দলের স্পিনাররা। প্রথম ইনিংসে ক্যারিবীয়দের মাত্র ১১১ রানে গুটিয়ে দিয়েছে স্বাগতিক শিবির। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ফলোঅন করানোর পর ফিরতি ইনিংসে তাদের ২১৩ রানে অলআউট করেছে বাংলাদেশ। টাইগাররা জিতেছে ইনিংস ও ১৮৪ রানের বিশাল ব্যবধানে।

ক্যারিবীয়দের দুই ইনিংসেই বোলিং বিভাগে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল বোলার মিরাজ। প্রথম ইনিংসে সাত উইকেট তুলে নিয়ে মিরাজ ধস নামিয়েছেন ক্যারিবীয়দের ব্যাটিং অর্ডারে। এক ইনিংসে সাত উইকেট নেওয়া প্রথম বোলার হিসেবে নাম লেখালেন মিরাজ। তৃতীয় দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় ইনিংসের দুঃস্বপ্ন হয়ে থাকলেন মিরাজ। এবার শিকার করেছেন আরো পাঁচ উইকেট। ডান হাতি এই অফ স্পিনারের ঘূর্ণি জাদুতে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে সফরকারীদের মিডল অর্ডার।

ঢাকা টেস্টে মিরাজের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সই বলে দিচ্ছে আগের চেয়ে আরো অনেক পরিণত তিনি। ব্যাট হাতে প্রায়ই দ্যুতি ছড়াতে দেখা যায় তাকে। তবে বোলার মিরাজ বেশি কার্যকর। ঘরের মাঠে টেস্ট খেলা মানেই মিরাজের উইকেট উৎসব। মাত্র দুই বছরেই বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা বোলার হয়ে উঠেছেন তিনি।

২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে টেস্ট আঙ্গিনায় পা রাখেন মিরাজ। প্রথম টেস্টের স্নায়ুচাপটা ঠিকভাবে সামলে নিতে পারেননি তিনি। দ্বিতীয় টেস্টেই নিয়েছিলেন ১৫৯ রানে ১২ উইকেট। ১৮তম টেস্টে এসে এমন অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সের পুনরাবৃত্তি করলেন মিরাজ। তবে এবার কম রান খরচ হয়েছে ১১৭ তার। কাল তৃতীয় দিনের সকালের

বাংলাদেশের একের পর এক উইকেট উদ্যাপনের মধ্যমণি মিরাজ। দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে তিন উইকেট নেওয়া মিরাজ কাল শিকার করলেন আরো ৯টি। তাতেই রেকর্ড। দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে দ্বিতীয়বার এক টেস্টে অন্তত ১০ উইকেট শিকার করলেন মিরাজ। এই সাফল্যের রহস্য কী! কীভাবেই বা এটা সম্ভব হলো।

কাল ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মিরাজ জানালেন স্বাভাবিক বোলিং করেই এমন সাফল্য পেয়েছেন তিনি। মিরাজ বলেছেন, ‘ভালো জায়গায় ধারাবাহিকভাবে বল করেছি। এজন্যই উইকেট পেয়েছি। যদি ভালো জায়গায় বল না করতাম, তাহলে উইকেট পেতাম না, রানও হয়ে যেত।’

কোনো নির্দিষ্ট টেস্টে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল বোলার মিরাজ। কাল দাপুটে বোলিংয়ে তিনি ছাড়িয়ে গেছেন এনামুল হক জুনিয়রকে। ২০০৫ সালে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট জয়ের ম্যাচে ২০০ রানে ১২ উইকেট নিয়েছিলেন বাঁ-হাতি এই স্পিনার।

কাল তাকেও ছাড়িয়ে গেছেন মিরাজ। প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত বোলিং করেও একটা জায়গায় সবার ওপরে উঠেছেন তিনি। বাংলাদেশের প্রথম অফ স্পিনার হিসেবে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ সাতটি উইকেট শিকার করেছেন এই অলরাউন্ডার।