জাপানি টেনিসকন্যার নতুন ইতিহাস

প্রকাশ | ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৩

অনলাইন ডেস্ক

সেরেনা উইলিয়ামসকে আদর্শ মেনেই টেনিসে হাতেখড়ি নাওমি ওসাকার। ১৬ বছর বয়সে সেরেনা যখন প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতলেন তখন নাওমির বয়স মাত্র দুই। দুই তারকার বেড়ে উঠার গল্পটাও প্রায় একই। ছোট বেলায় বাবার কাছে টেনিসের প্রথম পাঠ নিয়েছিলেন সেরেনা। আর নাওমিরও প্রথম গুরু তার বাবা।

অবশেষে ইউএস ওপেনের ফাইনাল একবিন্দুতে নিয়ে এলো দুই প্রজন্মের তারকাকে। ফ্ল্যাশিং মিডোর ফাইনালে অবশ্য জয় হয়েছে নতুন তারকারই। নিজের শৈশবের আইডল সেরেনাকে ৬-২ ও ৬-৪ গেমে হারিয়েই প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যামের স্বাদ পেয়েছেন জাপানি কন্যা নাওমি।

যতই সেরেনা ভক্ত হোক না কেন, কোর্টে অবশ্য সেই আবেগটা সংবরণ করে রেখেছিলেন নাওমি। সেরেনার বিপক্ষে মুখোমুখি হওয়া নিয়ে ২০ বছর বয়সী তারকা জানিয়ে দেন, ‘আমি সেরেনা ভক্ত নই।’ ‘আমি একজন সাধারণ খেলোয়াড়, যে আরেকজন খেলোয়াড়ের মুখোমুখি হয়েছি।’ কিন্তু জয়ের পর সে ঠিকই সেরেনাকে সম্মান দেখিয়ে কেঁদে ফেলেছেন নাওমি। কোর্টের মধ্যে কাঁদতে কাঁদতেই তিনি বলে ফেললেন, ‘এমনভাবে শেষ করার জন্য আমি দুঃখিত।’ তার এই কান্নার সময় ঠিকই পাশে পেলেন ‘আইডল’ সেরেনাকে।

ফাইনালের আগে পরিসংখ্যানে অবশ্য সেরেনা থেকে এগিয়ে ছিলেন নাওমি। ফ্ল্যাশিং মিডোর লড়াইয়ের আগে একবার সেরেনার বিপক্ষে কোর্টে নেমেছিলেন তিনি।

চলতি বছর মিয়ামি ওপেনের প্রথম রাউন্ডের লড়াইয়েও জয় পেয়েছিলেন নাওমি। এই এক গ্র্যান্ড স্ল্যামেই জাপানিজদের মধ্যমণি হয়ে উঠেছেন সাত নাম্বার বাছাই। মধ্যমণি হওয়ারই কথা, কারণ এটিই জাপানের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়!

অভিজ্ঞতার বিচারে বলতে গেলে সেরেনার কাছে নাওমি শিশুই। কিন্তু সেরেনা চাননি, গ্র্যান্ড স্ল্যামটা হাতছাড়া হোক। কারণ ইউএস ওপেনটা জিতলেই ২৪টি গ্র্যান্ড সø্যামের মালিক অস্ট্রেলিয়ান টেনিস কিংবদন্তি মার্গারেট কোর্টের রাজত্বের ভাগ নিতে পারতেন সেরেনা। কিন্তু তা আর হলো না ৩৬ বছর বয়সী মার্কিন কন্যার।

পিডিএসও/তাজ