মাহমুদউল্লাহদের আরেকটি হার

প্রকাশ : ২৯ আগস্ট ২০১৮, ১০:১৪

অনলাইন ডেস্ক

আগের ম্যাচে বোলিং পাননি, প্রয়োজন হয়নি ব্যাটিংয়ে নামার। এবার দুটি সুযোগই পেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু তেমন কিছু করে দেখাতে পারলেন না। হারলো তার দলও।

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) বাংলাদেশ সময় আজ ভোরে অনুষ্ঠিত ম্যাচে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের কাছে ৪ উইকেটে হেরেছে মাহমুদউল্লাহ-গেইলদের সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। আগে ব্যাট করে প্যাট্রিয়টস তুলেছিল ৭ উইকেটে ১৬৮ রান। ওয়ারিয়র্স সেটি পেরিয়ে গেছে এক বল বাকি থাকতে।

ষষ্ঠ ম্যাচে এটি প্যাট্রিয়টসের তৃতীয় হার। ৬ পয়েন্ট নিয়ে তারা আছে পয়েন্ট টেবিলের চার নম্বরে। ষষ্ঠ ম্যাচে চতুর্থ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে দুয়ে উঠে এসেছে ওয়ারিয়র্স। সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসের ব্যাটে উড়ন্ত সূচনা পেয়েছিল প্যাট্রিয়টস। দুই ওপেনার পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে তোলেন ৬২ রান।

সিপিএলে সোহেল তানভীরকে আগে কখনো ছক্কা হাঁকাতে পারেননি গেইল। আজ পঞ্চম ওভারে পাকিস্তানি পেসারের শেষ পাঁচ বলে তিনি হাঁকান দুটি ছক্কা ও তিনটি চার! এই ওভারেই সিপিএলের ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে দুই হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন ক্যারিবীয় ওপেনার।

অষ্টম ওভারে কিমো পলের বলে গেইলের বিদায়ে ভাঙে ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটি। ২৭ বলে ৪ চার ও ৩ ছক্কায় গেইল করেন ৪০। পরের ওভারে ইমরান তাহিরের বলে লুইস ফেরেন ২২ বলে ২৮ রান করে। তাহির নিজের পরের দুই ওভারে নেন আরো দুই উইকেট। তাতে বিনা উইকেটে ৭১ থেকে প্যাট্রিয়টসের স্কোর হয়ে যায় ৪ উইকেটে ৯৭।

এদিন সাত নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু ৬ বলে ৪ রানের বেশি করতে পারেননি। বাংলাদেশের অলরাউন্ডারকে ফিরিয়ে ইনিংসে নিজের চতুর্থ উইকেট নেন তাহির। শেষ দিকে অ্যান্টন ডেভসিচের ২৪ বলে ৩৫ ও বেন কাটিংয়ের ৯ বলে অপরাজিত ১৯ রানে দেড়শ ছাড়ানো পুঁজি পায় প্যাট্রিয়টস। তাহির ২২ রানে নেন ৪ উইকেট।

লক্ষ্য তাড়ায় ৪৩ রানে দুই ওপেনারকে হারিয়েছিল ওয়ারিয়র্স। সেখান থেকে দলকে এগিয়ে নেন শিমরন হেটমায়ার ও জেসন মোহাম্মদ। হেটমায়ার ব্যক্তিগত ১৫ ও দলীয় ৮৯ রানে ফিরলে ক্যামেরন ডেলপোর্টের সঙ্গে দলের স্কোর একশ পার করেন জেসন।

পরপর দুই ওভারে ডেলপোর্ট ও জেসনকে ফিরিয়ে ম্যাচে ফিরেছিল প্যাট্রিয়টস। মাহমুদউল্লাহ নিজের চতুর্থ ওভারের শেষ বলে ফেরান ডেলপোর্টকে। পরের ওভারে জেসনকে (৩৬) কাটিং ফিরিয়ে দিলে ওয়ারিয়র্সের স্কোর হয়ে যায় ৫ উইকেটে ১১১।

শেষ পাঁচ ওভারে ওয়ারিয়র্সের দরকার ছিল ৫৭ রান।তবে সোহেল তানভীরের ২০ বলে ৩ ছক্কা ও ২ চারে অপরাজিত ৩৭ রানের ক্যামিওতে সহজেই জয়ের বন্দরে নোঙর ফেলে ওয়ারিয়র্স। মাহমুদউল্লাহ ৪ ওভারে ২৮ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট।

পিডিএসও/হেলাল