বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ঘিরে উৎসবের শহরে পরিণত নীলফামারী

প্রকাশ : ২৭ আগস্ট ২০১৮, ২০:৫১

ওয়ালি মাহমুদ সুমন, নীলফামারী

বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ঘিরে উৎসবের শহরে পরিণত হয়েছে নীলফামারী। শহরের বিভিন্ন প্রান্ত সাজানো হয়েছে ভিন্ন রুপে। প্রথম বারের মতো নীলফামারীতে আন্তর্জাতিক ম্যাচ হওয়ার আনন্দ যেন বিশেষ উৎফুল্লতা সৃষ্টি করেছে জেলার মানুষদের মাঝে। 

নীলফামারীর মাটিতে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ ইতিহাসের স্বাক্ষী হওয়া ছাড়াও ক্রীড়া নৈপুণ্য দেখাবে বাংলাদেশের খেলোয়ারগণ এমনটা প্রত্যাশা করছে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। 

এদিকে দ্বিতীয় দিনেও কাঙ্খিত টিকিট সংগ্রহ করতে ভোর থেকে উপচে পড়া ভীড় ছিলো ব্যাংকগুলোতে। তবে চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম হওয়ায় টিকিট দিতে হিমশিম খেতে হয় ব্যাংক কর্মকর্তাদের। 

নীলফামারী শহরের মিলনপল্লী মহল্লার জাফরুল ইসলাম জানান, প্রথম দিন রোববার গিয়েও টিকিট পাইনি। সোমবারও সকাল থেকে দাঁড়িয়ে টিকিট পাইনি। ব্যাংক থেকে জানানো হচ্ছে টিকিট নেই। 

জেলা ক্রীড়া সংস্থা সুত্র জানায়, সাধারণ গ্যালারিতে ১৯হাজার দর্শকদের জন্য টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে জেলার ১১টি ব্যাংকের মাধ্যমে। প্রথম দিনই বেশির ভাগ টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে। 

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন মুন জানান, ম্যাচ দেখার প্রত্যাশা করছেন সবাই কিন্তু আমাদের ধারণ ক্ষমতা সব মিলে ২৩হাজার ৬৯জনের। ১৯ হাজার পুরুষ, ১হাজার নারীর জন্য সাধারণ গ্যালারি এবং ৩৬৯জন ভিআইপি আসন রয়েছে। 

নারীদের জন্য শেখ কামাল স্টেডিয়ামের কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। আগ্রহীরা এখান থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন নির্দিষ্ট সময়ে। ক্রীড়া সংগঠক দীপক চক্রবর্তি জানান, ম্যাচটি হওয়ার পর নতুন বিশেষত্ব পাবে নীলফামারীর মানুষ। ক্রীড়াঙ্গণে প্রভাব পড়বে বিশেষ করে। আয়োজনের নানা দিক এবং খেলা থেকে বিশেষ কিছু গ্রহণ করতে পারবে আমাদের তরুণ সমাজ। 

জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল আমীন স্বপন মনে করেন, নীলফামারী সবদিক থেকে এগিয়েছে যার জলন্ত উদাহরণ বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচ। এরআগে কখোনো এরকম আয়োজন করতে পারেনি কেউ। ভবিষ্যতে আমরা আরো ভালো কিছু করতে পারবো এটাই সেটা প্রমাণ করবে। 

খেলা ঘিরে শেখ কামাল স্টেডিয়ামে যাবতীয় প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। চলছে উৎসব সম্পন্নের কর্মসুচী বাস্তবায়নে। 

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, জেলাবাসী এই আয়োজনকে স্বার্থক হিসেবে গ্রহণ করেছে। 
ক্রীড়াক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখবে ম্যাচটি। সরকারের উন্নয়নের যে প্রমাণ সেটি স্বচোখে দেখবে আন্তর্জাতিক মহলও। 

সোমবার সকালে শ্রীলঙ্কা টিম ঢাকা থেকে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়। সেখান থেকে তাদের রংপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। রংপুরে অবস্থান করবে তারা। 
বুধবার বিকেল চারটায় প্রীতি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে নীলফামারী শেখ কামাল স্টেডিয়ামে। 

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এবং বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি সালাউদ্দিন আহমেদের ম্যাচটি উপভোগের কথা রয়েছে।

পিডিএসও/রিহাব