ত্রিদেশীয় সিরিজ : ৬ উইকেটে হারলো বাংলাদেশ

প্রকাশ : ০৯ মার্চ ২০১৮, ০৫:২৯

অনলাইন ডেস্ক

ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের কাছে ৬ উইকেটে হারলো বাংলাদেশ। শ্রীলংকায় নিদাহাস ট্রফিতে টাইগারদের এটি প্রথম ম্যাচ ছিলো। টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ১৩৯ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ৮ বল বাকী রেখে টুনামেন্টে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে প্রথম জয়ের স্বাদ নেয় ভারত। কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং-এ নামে মাহমুদুল্লার দল। ভালো শুরুর আভাস দিয়েছিলেন ওপেনিং-এ তামিম ইকবালের সঙ্গী সৌম্য সরকার। ১টি করে ৪ ও ছক্কায় শুরু করেছিলেন তিনি। কিন্তু নিজের ১২তম বলেই ভারতের পেসার জয়দেব উনাদকতের শিকার হতে ১৪ রান করা সৌম্যকে।
দ্বিতীয় উইকেটে লিটন দাসের সাথে ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব নেন তামিম। কিন্তু সফল হতে পারেননি তামিম। জুটিতে ১৫ রানের বেশি যোগ করতে পারেননি। তামিম নিজেও ১৫ রান করেন। তার ইনিংসে ২টি চার ছিলো। দলীয় ৩৫ রানে তামিমের বিদায়ের পর বাংলাদেশের রানের চাকা সচল রাখেন লিটন ও সাবেক অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। মারমুখী মেজাজেই ছিলেন তারা। তাই এই জুটির কাছ থেকে ২৩ বলে ৩১ রান পায় বাংলাদেশ। ১৪ বলে ১৮ রান করা মুশফিকুরের বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। তার ইনিংসে ২টি চার ও ১টি ছক্কার মার ছিলো।
মিডল-অর্ডারে নিজের দায়িত্বটা পালন করতে পারেননি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ৮ বল মোকাবেলা করে মাত্র ১ রান করেন তিনি। তার বিদায়ে ক্রিজে লিটনের সঙ্গী হন সাব্বির রহমান। রান তোলার কাজটা ভালোভাবেই করছিলেন লিটন-সাব্বির। দু’জনের ব্যাটে চড়ে শতরানের কোটা পেরিয়ে যায় বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশের স্কোর তিন অংকে পৌঁছানোর পরই থেমে যেতে হয় লিটনকে। ৩টি চারে ৩০ বলে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন তিনি। ২৭ বলে ৩৫ রান যোগ করেন লিটন-সাব্বির।
লিটনের মত সাব্বিরও ছোট এবং কার্যকরী ইনিংস খেলেন। তবে তার কাছ থেকে আরও বড় ইনিংস আশা করেছিলো বাংলাদেশ। কারন ইনিংসের শেষদিকে বাংলাদেশের শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ছিলেন সাব্বিরই। কিন্তু ইনিংসের ৭ বল বাকী থাকতেই প্যাভিলিয়নে ফিরতে হয় সাব্বিরকে। ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৬ বলে ৩০ রান করেন সাব্বির। শেষ পর্যন্ত তাসকিন আহমেদের অপরাজিত ৮, মেহেদি হাসান মিরাজের ৩ ও মুস্তাফিজুর রহমানের অপরাজিত ১ রানে ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৯ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। ভারতের পক্ষে উনাদকত ৩টি ও বিজয় শংকর ২টি উইকেট নেন।
১৪০ রানের লক্ষ্যে মারমুখী মেজাজেই শুরু করেন ভারতের ওপেনার ও অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তিনটি বাউন্ডারিতে দলের স্কোর ৩ ওভারে ২৭ রানে নিয়ে তিনি। তবে চতুর্থ ওভারেই থেমে যায় রোহিতের ইনিংস। বাংলাদেশের বাঁ-হাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের ডেলিভারিতে বোল্ড হন তিনি। ১৩ বলে ১৭ রান করেন রোহিত। ৩ নম্বরে ব্যাট করার সুযোগটা ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারেননি ঋসভ পান্থ। বাংলাদেশের পেসার রুবেল হোসেনের শিকার হয়ে ৮ বলে ৭ রান করেন তিনি। দলীয় ৪০ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারানোর পর দলকে ভালো অবস্থায় নিয়ে যান আরেক ওপেনার শিখর ধাওয়ান ও চার নম্বরে ব্যাট হাতে নামা সুরেশ রায়না। ৫৪ বলে ৬৮ রান যোগ করেন তারা। এতেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রন নেয় ভারত।
রুবেলের দ্বিতীয় শিকার হয়ে রায়না ২৭ বলে ২৮ রান করে ফিরলেও, টি-২০ ক্যারিয়ারের ষষ্ঠ হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন ধাওয়ান। আগের ম্যাচে শ্রীলংকার বিপক্ষে ৯০ রান করা ধাওয়ান এবার থামেন ৫৫ রানে। ৪৩ বল মোকাবেলা করে ৫টি ৪ ও ২টি ছক্কা মারেন তিনি। শেষদিকে মনিষ পান্ডিয়া অপরাজিত ২৭ ও দিনেশ কার্তিক অপরাজিত ২ রান করে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন। বাংলাদেশের রুবেল ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর 
বাংলাদেশ : ১৩৯/৮, ২০ ওভার (লিটন দাস ৩৪, সাব্বির ৩০, উনাদকট ৩/৩৮)।
ভারত : ১৪০/৪, ১৮.৪ ওভার (ধাওয়ান ৫৫, রায়না ২৮, রুবেল ২/২৪)
ফলাফল : ভারত ৬ উইকেটে জয়ী।

পিডিএসও/মুস্তাফিজ