কেপটাউনে ভুবনেশ্বরে ধুঁকছে দক্ষিণ আফ্রিকা

প্রকাশ : ০৫ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:৪০

অনলাইন ডেস্ক

কেপটাউন টেস্টের মধ্য দিয়ে বিদেশের মাটিতে কোহলি বাহিনীর কঠিন পরীক্ষা শুরু হয়ে গেলো। ভারতের জন্য একটি প্রবাদ বাক্য রয়েছে যে, তারা নিজেদের মাটিতে বাঘ কিন্তু বিদেশের মাটিতে বিড়াল। এবার এ প্রবাদ বাক্যকে বুমেরাং করার সময় এসেছে। 

ম্যাচ শুরুর আগের দিন কেপটাউনের নিউল্যান্ডসের পিচ নিয়ে নিজের সন্তুষ্টির কথাই জানিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু প্লেসি। বৃহস্পতিবার পিচ দেখে এসে সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছিলেন, এমন পিচই তারা চেয়েছিলেন। কিন্তু কি করে যেন উল্টে গেল পাশার দান। সেই পিচেই এখন আগুন ঝড়াচ্ছেন ভারতীয় পেসার ভুবনেশ্বর কুমার। 

শুক্রবার টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ফাফ ডু প্লেসিসের দল। দুই পেসার মোহাম্মদ শামি আর ভুবনেশ্বর কুমারকে দুই প্রান্ত থেকে আক্রমণে আনেন বিরাট কোহলি। অধিনায়কের প্রত্যাশার মর্যাদা দিতে সময় নেননি ভুবি। এদিন জাতীয় দলের হয়ে সাদা জার্সিতে অভিষেক হয় ভারতের তারকা পেসার জসপ্রিত বুমরাহর। দল থেকে বাদ পড়েন ইশান্ত শর্মা ও আজিঙ্কা রাহানে। অসুস্থতার জন্য বাইরে রাখা হয়েছে রবীন্দ্র জাদেজাকে।

বোলিংয়ে নেমে ডু প্লেসিসের নেয়া সিদ্ধান্তকে ভুল বলে প্রমাণিত করেন ভারতীয় বোলাররা। বিশেষ করে বলতে হয় ভুবনেশ্বর কুমারের কথা। ভুবনেশ্বরের আগুনঝরা বলের সামনে শুরুতেই বিপর্যয়ে পড়ে স্বাগতিকরা। ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই উইকেট কিপার ঋদ্ধিমান সাহার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন এলগার (০)। এরপর মোহাম্মদ শামির ওভারটি কোনোরকমে কেটে যায়। কিন্তু ম্যাচের তৃতীয় ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে আবার আঘাত হানেন ভুবনেশ্বর। ওভারের শেষ বলে এবার এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলেন আরেক ওপেনার আইডেন মারকরামকে। দলীয় ৭ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৩ রানে ক্রিজ ছাড়েন মারকরাম।

দক্ষিণ আফ্রিকার স্কোর যখন ২ উইকেটে ১২, তখন আবার আঘাত ভুবনেশ্বরের। তার করা ম্যাচের পঞ্চম ওভারের পঞ্চম বলে উইকেট কিপার ঋদ্ধিমানের কাছে ক্যাচ দিয়ে প্যাভেলিয়ানের পথ ধরেন প্রোটিয়াদের সাবেক অধিনায়ক হাশিম আমলা (৩)। তাতে ৫ ওভার শেষে স্বাগতিকদের স্কোর দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ১২ রানে। ৩টি উইকেটই ভুবনেশ্বরের ঝুলিতে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিজের অর্ধশত তুলে নিয়েছেন ডি ভিলিয়ার্স। অপরাজিত আছেন ৫২ রানে ও অপরপ্রান্তে ৩১ রান নিয়ে আছেন অধিনায়ক ডু প্লেসি। দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১০৭।

পিডিএসও/রিহাব