বললেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

‘ডিজিটাল সেন্টারকে ওয়ানস্টপ সার্ভিস গড়ে তোলা হবে’

প্রকাশ : ১১ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:০৩ | আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:২৭

প্রতিদিনের সংবাদ ডেস্ক
ডিজিটাল সেন্টার নিয়ে আয়োজিতে ইনোভেশন টক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, বর্তমানে ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে ১৫০-এর অধিক সেবা প্রদান করা হচ্ছে। সময়ের প্রয়োজনে ডিজিটাল সেন্টারকে সবার জন্য একটি ‘ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেন্টার’ হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার।

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই)-এর উদ্যোগে ডিজিটাল সেন্টার নিয়ে আয়োজিতে ইনোভেশন টক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ডিজিটাল সেন্টারের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই ‘ইনোভেশন টক’ সেশনের আয়োজন করা হয়।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন হচ্ছে শহরের সব সুবিধা গ্রামীণ মানুষের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাওয়া। শুধু নদীভাঙন বা দারিদ্র্যের কারণেই মানুষ গ্রাম ছেড়ে শহরে আসে না বরং, শিক্ষিত যুব সমাজের মধ্যেও শহরে আসার প্রবণতা বেশি। তাদের যদি আমরা গ্রামে রেখেই শহরের সুবিধা দিতে পারি, তাহলে আর তারা শহরে আসবে না। তাই তাদের একটি ল্যাপটপ বা কম্পিউটার দিয়েই ঢাকা বা দেশ তো বটেই, পুরো বিশ্বের সঙ্গে যুক্ত করে দেওয়া যায়। আর এই কাজটিই করছে ডিজিটাল সেন্টার।

এটুআই’র পলিসি এডভাইজার আনীর চৌধুরীর সঞ্চালনায় ইনোভেশন টকে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এছাড়াও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, এটুআই’র প্রকল্প পরিচালক ড. আবদুল মান্নানসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থিত ডিজিটাল সেন্টারের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া প্রান্তিক পর্যায় থেকেও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনেকে এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, সারাদেশে ৫ হাজার ৮৬৫টি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। জনগণের দৌড়গোড়ায় সরকারের সেবা পৌঁছে দিতে শুধু দেশেই নয়, বিশ্বের কাছে সাফল্যের দৃষ্টান্ত হিসেবে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার প্রশংসিত ও পুরস্কৃত হয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল