টিক টোক অ্যাপ ফেসবুককে পেছনে ফেলে দিয়েছে

প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৮, ১৬:২৩

অনলাইন ডেস্ক

২০১৮ সালের প্রথম তিন মাসে আইফোনে সবচেয়ে ডাউনলোড করা হয়েছে চীনের এই ভিডিও সেলফি ব্যবহারের অ্যাপটি। চীনে এই অ্যাপটি ডাউয়িন বা কাঁপানো সংগীত নামে পরিচিত, যেটি এখন পর্যন্ত বিশ্বে ৪ কোটি ৪৮ লাখ বার নামানো হয়েছে। ফলে এর পেছনে পড়ে গেছে ইউটিউব, হোয়াটসঅ্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুক বা ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপগুলো। যুক্তরাষ্ট্রের টেক গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্সর টাওয়ার এ তথ্য প্রকাশ করেছে। 

২০১৮ সালের জানুয়ারি-মার্চ সময়ে সবচেয়ে ডাউনলোড করা অ্যাপের তালিকা। টিক টোক ভিডিও শেয়ারিং ৪৫ দশমিক ৮ শতাংশ। পিইউজিবি মোবাইল গেম ৪২। ইউটিউব ভিডিও ৩৫ দশমিক ৩। হোয়াটসঅ্যাপ তাৎক্ষণিক বার্তা পাঠানো ৩৩ দশমিক ৮। ম্যাসেঞ্জার তাৎক্ষণিক বার্তা পাঠানো ৩১ দশমিক ৩ শতাংশ। ইনস্টাগ্রাম ছবি ও ভিডিও শেয়ারিং ৩১ শতাংশ। ফেসবুক সামাজিক যোগাযোগ ২৯ দশমিক ৪ শতাংশ। উইচ্যাট সামাজিক যোগাযোগ ২৮ দশমিক ৯ শতাংশ। কিউকিউ সামাজিক যোগাযোগ ২২ দশমিক ৬ শতাংশ। ইকিউয়িভিডিও ২২ দশমিক ৬ শতাংশ। গুগল ম্যাপ নেভিগেশন ২২ দশমিক ৪ শতাংশ।

এই অ্যাপের মূল ধারণা প্রকাশ করা হয় ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে। সেটি ছিল খুব সহজ, ব্যবহারকারীরা ১৫ সেকেন্ডের ছোট ছোট সংগীতসংবলিত ভিডিও তৈরি করতে পারবেন, যেখানে বেশ কিছু ইফেক্ট যোগ করা যাবে।গবেষণা প্রতিষ্ঠান জিগুয়াং বলছে, চীনে মোট ব্যবহৃত স্মার্টফোনগুলোর অন্তত ১৪ শতাংশ ফোনে এই অ্যাপটি ব্যবহৃত হচ্ছে। তবে এটি আইফোনে যত ভালোভাবে কাজ করে, অ্যান্ড্রয়েড ফোনগুলোয় ততটা ভালো কাজ পাওয়া যায় না।

এর কারণ হতে পারে, মেইনল্যান্ড চীনে গুগলের ডিস্ট্রিবিউশন প্লাটফর্মগুলো কাজ করে না। কারণ চীনে গুগলের সেবাগুলো নিষিদ্ধ রয়েছে। তবে টিক টোকের লক্ষ্য শুধু চীনে নয়। প্রতিবেশী আরো কয়েকটি দেশে অ্যাপটি ছড়িয়ে পড়ছে, যার মধ্যে রয়েছে জাপানও।

পিডিএসও/তাজ