ছিন্নমূল মানুষের পাশে মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগ

প্রকাশ : ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৮:০১

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে স্থবির হয়ে পড়েছে মানুষের জীবন। বিশেষ করে খেটে খাওয়া, দিনমজুর, রিকশাচালক এবং কর্মহীন নিম্ন আয়ের মানুষের জীবনযাত্রায় বিরাট এক ধাক্কা দিচ্ছে কোভিড-১৯ নামের ভয়ংকর বিভীষিকাময় এই ভাইরাস। তবে দেশের এই কঠিন সময়ে অসহায় গরিব দুখী মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন আওয়ামী স্বেচ্ছাবেক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি কামরুর হাসান রিপনসহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

প্রতিদিনিই হতদরিদ্র, রিকশাচালক, খেটে-খাওয়া মানুষদের মাঝে একবেলা খাবারের পাশাপাশি দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রীও বিতরণ করছেন তারা। বিশেষ করে ঢাকা পাঁচ আসনের বিভিন্ন ওয়ার্ড এবং থানায় এই কার্যক্রম পরিচালনা করছেন কামরুল হাসান রিপন। তার নেতৃত্বেই বুধবার কদমতলী এবং শ্যামপুর থানার বিভিন্ন ওয়ার্ডে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন ওই নেতাকর্মীরা। তার নেতৃত্বে আগামীতে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের আরও রয়েছে। পর্যায়ক্রমে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রতিটি থানার প্রতিটি ওয়ার্ডে পালন করা বলে বলেও জানা গেছে। 

দেশের এমন কঠিন মুহূর্তে সাধারণ মানুষের সেবা করতে পেরে আনন্দিত মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন। সেইসঙ্গে তার নেতাকর্মীদের কার্যক্রমেও সন্তুষ্ট তিনি।

এ ব্যাপারে কামরুল হাসান রিপন বলেন, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক সমস্যা। এই ভাইরাস মোকাবেলায় দেশরত্ন শেখ হাসিনা ইতোমধ্যেই কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়েছেন। আমরাও অসহায়, গরিব-দুঃখী মানুষের পাশে আছি। দিনমজুর, রিক্সাচালক, খেটে-খাওয়া কর্মহীন মানুষদের হাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী তুলে দিচ্ছি। আমাদের এই ধারা অব্যাহত থাকবে। স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের প্রতিটি নেতাকর্মীই এই সময়ে সক্রিয়।

কামরুল হাসান রিপন বলেন, প্রতিদিনই তাদের মাঝে খাবার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছি। সরকারের যেহেতু নির্দেশণা রয়েছে সেহেতু সব রকমের স্বাস্থ্যবিধি মেনে, নিরাপদ দূরত্বে থেকে আমার কাছাকাছি এলাকাগুলোর দিকে এই কার্যক্রমগুলো বেশি পরিচালনা করছি। মঙ্গলবার দুপুরে সাধারণ মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করেছি। সন্ধ্যায় চাল, ডাল, তেলসহ প্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছি। বুধবার কদমতলি এবং শ্যামপুর থানার বিভিন্ন ওয়ার্ডের মানুষের মাঝে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দিয়েছি। ধারাবাহিকভাবে এটা অব্যাহত থাকবে। আমরা চাই এটা দেখে সমাজের বিত্তবান মানুষরাও অসহায়, গরিব-দুখী মানুষের পাশে দাঁড়াক।

জানা গেছে, কামরুল হাসান রিপন চলমান পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রতিদিনই নিজের এলাকার পাশাপাশি আশপাশের কোন না কোন এলাকায় নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য, চাল, ডাল, তেল, আলু, পেঁয়াজ, সাবান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক, কীটনাশকসহ সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করে যাচ্ছেন। সংগঠনের নেতাকর্মীরাও তার অনুপ্রেরণায় এবং নির্দেশনায় যার যার এলাকায় কাজ করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যেই সাবেক ছাত্রনেতা এবং ঢাকা দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নুরুর রহমান মুকুল এবং এম. জাকির হোসেন তাদের নিজ এলাকা লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলায় থানা এবং উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও সাধারণ মানুষের মাঝে সাবান, মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস ও সতর্কতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন। এছাড়া সবুজবাগ থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি লিটু আহমেদ নিজ এলাকায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার, কদমতলী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাকোওয়াত হোসেন টিটু মাস্ক এবং পুষ্টিকর দই, খিলগাঁও এলাকায় সাবেক ছাত্রনেতা এবং বর্তমান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আজগর হোসেন ইজাজ, সাবেক ছাত্রনেতা এবং নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা সৈয়দ মহিউদ্দিন টুটুল এবং গেণ্ডারিয়া থানার সাবেক ছাত্রনেতা অলিউল্লা শিশির নিজ নিজ এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য বিতরণ করেন। এছাড়াও লালবাগ, শাহজাহানপুর এবং বংশাল থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মামুন, জ্যোতি এবং ইশতিয়াক করিমও নিজ নিজ এলাকায় সাধারণ মানুষের মাঝে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিতরণের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করেছেন। 

স্বেচ্ছাসেবক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক তারিক সাঈদও অসহায় মানুষের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক, গ্লাভস, হ্যান্ড স্যানিটাইজার এবং সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছেন। নিজ উদ্যোগে কয়েকশ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণেরও প্রস্তুতি গ্রহণ করেছেন।

পিডিএসও/হেলাল