তরুণ নেতৃত্বের খোঁজে আ.লীগ

প্রকাশ : ০৬ জুলাই ২০১৯, ১০:২১ | আপডেট : ০৭ জুলাই ২০১৯, ১৩:১৬

জিয়াউদ্দিন রাজু

তারুণ্যের মেধা, নতুন চিন্তাধারা, সৃজনশীল মনোভাব দেশকে অনেকদূর এগিয়ে নেয়। তাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আসছে কেন্দ্রীয় সম্মেলনে তরুণ প্রজন্মের মধ্য থেকে নেতৃত্বদানে সক্ষম একাধিক নেতাকর্মীকে দায়িত্বে নিয়ে আসতে চাইছে।

নতুন নেতৃত্ব তৈরির ক্ষেত্রে দলটি যোগ্য ও দক্ষ মেধাবী তরুণদের দলে নিয়ে আসার ওপর গুরুত্বারোপ করেছে। আওয়ামী লীগের গত তিনটি জাতীয় সম্মেলনে দেখা গেছে, এ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে নতুনদের নেতৃত্বে নিয়ে এসে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তাই ২১তম জাতীয় সম্মেলনে তৃণমূল আওয়ামী লীগেও তরুণদের স্থান দিতে চায় দলটি।

দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে এবার জেলা-উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলনের মাধ্যমে তরুণদের হাতে সাংগঠনিক দায়িত্ব তুলে দিতে কাজ করছেন। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেও এ প্রক্রিয়া সম্পর্কে জানা গেছে।

তরুণদের আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত করতে নানামুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছে দলটি। দেশের তরুণ সমাজের মনোভাব জানা এবং তারা আগামীতে কেমন আওয়ামী লীগ দেখতে চান— এ বিষয়ে এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে আওয়ামী লীগের মিডিয়া সেল, প্রচার ও প্রকাশনা উপকমিটি এবং দলের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিআরআই। নিয়মিতভাবে তারা দেশের তরুণ সমাজের সঙ্গে মতবিনিময় শুরু করেছেন। তরুণদের সঙ্গে হওয়া ওই মতবিনিময় সভাগুলোয় তাদের সব তথ্য, পরামর্শ ও পরিকল্পনার কথা শুনছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় কেন্দ্রীয় নেতারা। পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও দেশের তরুণ সমাজের ভাবনা জানতে জরিপ পরিচালনা করা হচ্ছে।

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এবার জেলা পর্যায়ে সম্মেলনে অন্তত ২০ থেকে ৩০টি ইউনিটের বিভিন্ন পদে অপেক্ষাকৃত তরুণ নেতাদের জায়গা করে দেওয়া হতে পারে। তবে তাদের অবশ্যই রাজনৈতিক ত্যাগ এবং দক্ষতা ও মেধাও থাকতে হবে।

এসব বিষয়ে আওয়ামী লীগের তরুণ নেতা এবং দলের পরিবেশ ও বনবিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সব সময়ই নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে গঠিত দল। প্রবীণদের অভিজ্ঞতা ও তরুণদের শক্তি কাজে লাগিয়েই দল এগিয়ে যেতে চায়। তবে আমরা তরুণদের রাজনীতিতে সক্রিয় করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগের এবারের নির্বাচনী ইশতেহারেও তারুণ্যকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এজন্য আমরা তরুণদের সঙ্গে তাদের ভাবনা বিনিময় করছি। পাশাপাশি তরুণদের কাছ থেকেও দেশ গড়ায় নতুন কোনো চিন্তাভাবনা থাকলে, আমরা তা গ্রহণ করতে চাই।’

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, দলে আগামী প্রজন্মের নেতৃত্ব তৈরি করার জন্য এখন থেকেই সক্রিয় হতে শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। এজন্য দলে নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান আগামী ২১ জুলাই থেকে শুরুর ঘোষণা দিয়েছে। গত মাসে রাজধানীর ধানমন্ডিতে দলের সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের জানান, সদস্য নবায়নের চেয়ে এবার নতুন সদস্য সংগ্রহে গুরুত্ব দেওয়া হবে। জেলা-উপজেলা শাখা নিয়মাবলি মেনে সদস্য সংগ্রহের বই করা হবে ও সদস্য সংগ্রহ করা হবে।

এরই মধ্যে সেই নির্দেশনা দিয়েছেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা। বহুসংখ্যক নবীন এবার নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করেছেন। তাদের মধ্যে ক্লিন চরিত্রের যারা আছেন, আমরা তাদের সদস্য করে নেব।

এ ছাড়া দলীয় এক সভায় আওয়ামী লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহের তাগিদ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগে অনেক সাহসী, ত্যাগী ও দুঃসময়ের নেতা ছিলেন, যারা আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। আমাদের এখন নতুন কর্মী সৃষ্টি করতে হবে, কারণ কর্মীরাই হচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রাণ। শেখ হাসিনা ১/১১তে কারাগার থেকে বের হতে পারতেন না যদি কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ না থাকতেন। কর্মীরাই পারেন দুঃসময়ে আওয়ামী লীগকে বাঁচিয়ে রাখতে।

পিডিএসও/তাজ