কমিটি পুনর্গঠনের দাবি

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম

প্রকাশ : ১৪ মে ২০১৯, ১৫:৪০ | আপডেট : ১৪ মে ২০১৯, ১৬:১৩

অনলাইন ডেস্ক

আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ছাত্রলীগের ঘোষিত পূর্ণাঙ্গ কেন্দ্রীয় কমিটি বাতিল করা না হলে অনশনে বসাসহ পদত্যাগের হুমকি দিয়েছেন পদবঞ্চিতরা। এছাড়া ছাত্রলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশেই মধুর ক্যান্টিনে ছাত্রলীগ নেত্রীদের ওপর হামলা হয়েছে বলেও তারা অভিযোগ করেছেন। 

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিগত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ বাবু বলেন, বিগত সময়গুলোতে যারা সক্রিয়ভাবে ছাত্রলীগের সঙ্গে জড়িত ছিল, তাদের একটি বৃহৎ অংশকে বাদ কিংবা সঠিক মূল্যায়ন না করে ছাত্রলীগে নিষ্ক্রিয়, সাবেক চাকরিজীবী, বিবাহিত, অছাত্র, গঠনতন্ত্রের অধিক বয়স্ক, বিভিন্ন মামলার আসামি, মাদকসেবী, মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের দায়ে আজীবন বহিষ্কৃতসহ নানা অভিযোগে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পদায়ন করা হয়েছে। 

সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শামসুন্নাহার হল শাখার সভাপতি তন্নী জানান, বিতর্কিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি বাতিল করে নতুন কমিটি গঠন না  করা হলে অনশনের পাশাপাশি ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করবো আমরা। 

জসীম উদ্দিন হলের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান বলেন, আমরা কোনো আওয়ামী লীগ নেতার আশ্বাসে আশ্বস্ত হতে চাই না। যারা ডাকসু নির্বাচনের আগেও আমাদের বিভিন্ন ওয়াদা করেছেন কিন্তু তারা তা খেলাপ করেছেন। এখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে। সঠিক তথ্য গেলে বিতর্কিত কমিটি নিশ্চয়ই বাতিল করবেন তিনি।

রোকেয়া হলের সভাপতি লিপি আক্তার, যারা হামলা করেছে তাদের দিয়েই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আমরা এ কমিটি মানি না। কারণ শোভন-রাব্বানীর প্রত্যক্ষ নির্দেশে আমাদের ওপর তারা হামলা করেছে। সুষ্ঠু তদন্ত হোক। তদন্তের মাধ্যমে বিচার করার দাবি জানাই।  

এর আগে পদ বঞ্চিত ছাত্রলীগের শতাধিক নেতাকর্মী হাকিম চত্বর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মধুর ক্যান্টিনে গিয়ে শেষ। এ সময় কমিটি মানেন না বলে স্লোগান দেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতরা।

প্রসঙ্গত, গতকাল সোমবার ৩০১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। এরপর থেকেই ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা তাদের প্রতিক্রিয়া জানান।

পিডিএসও/তাজ