অনশন থেকে হাসপাতালে ভর্তি লতিফ সিদ্দিকী

প্রকাশ : ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১১:০৩

অনলাইন ডেস্ক
ama ami

আ. লীগের সাবেক প্রেডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে বুধবার সকালে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি শারিরীকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে সামনে আমরণ অনশনে থাকা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর শারিরীর অবস্থা পরীক্ষা করতে সকালে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা আসেন।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ মোফাজ্জল হোসেন তুষার বলেন, 'তিনদিন ধরে কিছু না খাওয়ার কারণে তার শরীর ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়ছে। তার  রক্তচাপ কমে যাচ্ছে। আগে থেইে তার হৃদপিণ্ডে রিং পরানো রয়েছে। চিকিৎসা না পেলে বড় ধরণের ক্ষতি হতে পারে। আমরা তাকে তার শরীরের অবস্থার বিষয়টি বুঝিয়েছি। উনি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে রাজি হয়েছেন। জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শহীদুল ইসলামের কাছে থেকে অনুমতি নিয়ে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।'

তবে হাসপাতালে যাওয়ার সময় চিকিৎসকদের উদ্দেশে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বলেন, 'আমি হাসপাতালে দুই ঘণ্টার বেশি থাকবো না। চিকিৎসা শেষে আমাকে তোমরা এখানে নিয়ে আসবে।'

গত রোববার টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ি ইউনিয়নের বল্লবভবাড়ি ও সরাতৈল এলাকায় গণসংযোগে করতে গেলে তার গাড়ি বহরে হামলা হয়। এ সময় ৪ টি গাড়ি ভাংচুর করা হয়, এতে ১০ নেতাকর্মী আহত হন। আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারীর কর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেন লতিফ সিদ্দিকী।

হামলার বিচার চেয়ে রোববার বিকেল থেকে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান ধর্মঘট শুরু করেন লতিফ সিদ্দিকী। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত, হামলারকারীদের গ্রেফতার ও কালিহাতী থানার ওসি মোশারফ হোসেনকে প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত তিনি সেখানেই বসে থাকবেন বলে জানান।

পরে রোববার রাতে জেলা রিটার্নিং কর্মকতার কার্যালয়ের সামনে শীতের কারণে খাট পেতে নেন লতিফ সিদ্দিকী। এর মধ্যে সোমবার টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলামকে পাঠানো এক চিঠিতে তিনি আমরণ অনশনে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন।

দাবি মানা না হলে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে থেকে উঠবেন না বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন লতিফ সিদ্দিকী। এতে তার কোনো ক্ষতি হলে নির্বাচন কমিশন দায়ী থাকবে বলেও চিঠিতে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাবেক এই নেতা।

পিডিএসও/তাজ