নির্বাচনে সহিংসতার বিষয়ে কী বললেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত

প্রকাশ : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৪৯ | আপডেট : ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৮:৪৮

অনলাইন ডেস্ক
ama ami

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহিংসতার বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের একথা জানান তিনি। সেইসঙ্গে তারা নির্বাচনের পরিবেশ ভয়ভীতি ও ত্রাসমুক্ত দেখতে চান বলেও জানান মিলার।

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বরাত দিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘বর্তমান নির্বাচনের পরিবেশ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেছেন, আপনারা নিজেরাই শুনেছেন, তিনি ভয়ভীতি-ত্রাসমুক্ত একটি নির্বাচন দেখতে চান। সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য, সকলের অংশগ্রহণের মধ্যে দিয়ে সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চান। এটিই তাদের সবচেয়ে বেশি প্রত্যাশা।’

মহাসচিব আরও বলেন, ‘তারা (যুক্তরাষ্ট্র) মনে করেন, ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে যেতে দেওয়া উচিত। তারা মনে করেন যে কোনো প্রার্থীর ওপর কোনো আক্রমণ যেন না হয়, এক কথায় শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়া উচিত বলে তারা মনে করেন।’

এছাড়া যারা বিরোধী দলে আছেন, তারা তাদের ক্যাম্পেইনও যেন নিরাপদে করতে পারে সেটা নিশ্চিত করা উচিত বলে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন মির্জা ফখরুল।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমরা (যুক্তরাষ্ট্র) চাই, বাংলাদেশে একটি অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক এবং শান্তিপূর্ণ জাতীয় নির্বাচন হোক। নির্বাচনে সহিংসতার বিষয়ে যেসব রিপোর্ট দেখছি, তাতে আমরা উদ্বিগ্ন। এ ব্যাপারে আমাদের অবস্থান হলো সকলের এটা নিশ্চিত করা দরকার যে ভায়োলেন্সকে পরিহার করা এবং একে নিন্দা জানানো।’

মিলার বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র মনে করে নির্বাচনের পদ্ধতি কার্যকর হবে না, যদি না সবাই নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় সমানভাবে অংশগ্রহণ করতে না পারে। আমি সকলকে উদ্ধুদ্ধ করব গণতান্ত্রিক উপায়ে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করার জন্য। আমরা আহ্বান জানাই, সকলকে মুক্তভাবে পুরোদমে নেমে যাওয়ার জন্য নির্বাচনী প্রচারণায়। এর মাধ্যমে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য।’

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, কারাবন্দী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা ও নির্বাচনে অংশ নেওয়া ধানের শীষের প্রার্থীসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে।

এর আগে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দুপুর ১২টা ৫০ মিনিটে আসেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত। তাকে কার্যালয়ে অভ্যর্থনা জানান দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল। দুপুর ২টায় বৈঠক শেষে রাষ্ট্রদূত সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন।

বৈঠকে মহাসচিব ছাড়া ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য সাবিহ উদ্দিন আহমেদ ও নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল।

এর আগে গত সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন ঢাকায় নবনিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য ও শান্তিপূর্ণ হবে বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাশার কথা প্রধানমন্ত্রীকে জানান মিলার।

পিডিএসও/রিহাব