উত্তরায় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে ছিল নির্বাচনী আমেজ

প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৩৫

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা-১৮ আসন তথা বৃহত্তর উত্তরায় জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি অন্য যে কোনোবারের থেকেও বেশি ছিল। সবার অংশগ্রহণ যেমন চোখে পড়ার মতো ছিল আবার মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের আন্তরিকতা ছিল উল্লেখযোগ্য। আগামী কয়েক মাস পরই জাতীয় সংসদ নির্বাচন। তাই বর্তমান এমপি সাহারা খাতুনের এ আসনে এবার স্থানীয় কয়েকজন নেতা নির্বাচন করতে চান। সব মিলিয়ে দলের তৃণমূল নেতাকর্মীরাও এসব মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের সঙ্গে ভাগ হয়ে যাচ্ছেন। জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বুধবার রাজধানীর উত্তরা এলাকায় বেশ কয়েকটি কাঙ্গালি ভোজের স্পট ঘুরে দেখা গেছে অধিকাংশ আয়োজনই মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতাদের সহযোগিতা নিয়ে আয়োজন করা হয়েছে। আবার কিছু স্পট দেখা গেছে কোনো নেতার সঙ্গে না থেকেই স্বতন্ত্র ভাবে আয়োজন করেছেন। 

তবে স্থানীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিব হাসান উত্তরার সব কয়টি থানা এলাকায় গরু প্রদান করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু গরু প্রদানের দৃশ্যও তুলে ধরেন উৎসাহী নেতাকর্মীরা। এতে দেখা গেছে, হাবিব হাসান বিমান বন্দর থানার সাধারণ সম্পাদক মাকসুদর রহমান, পূর্ব থানার সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমানসহ বেশ কয়েকজনের হাতে কাঙ্গালি ভোজের জন্য গরু তুলে দিচ্ছেন। উৎসাহী নেতাকর্মীরাও বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে নিয়েছেন। এর বাইরে স্থানীয় অপর মনোনয়ন প্রত্যাশী নগর আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক তোফাজ্জল চেয়ারম্যানও বিভিন্ন আয়োজনে ব্যস্ত ছিলেন সারা দিন। তিনি ঢাকা-১৮ থেকে নির্বাচন করতে চান। তবে, তার অনুসারীরা বলছেন এবার মনোনয়ন পেতে তিনি আটঘাট বেধে নেমেছেন। তাই তিনি দক্ষিন খান ও উত্তর খান এলাকায় ১৩টি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। তবে এসব দিক থেকে বেশ সরব দেখা গেছে আলোচিত মনোনয়ন প্রত্যাশী হাবিব হাসানের অনুসারীদের বেলায়।

অনসারীরা জানায়, এ মনোনয়ন প্রত্যাশী নেতা গতকাল সারাদিনে প্রায় ৪০টির মতো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে নেতাকর্মীদের সঙ্গ দিয়েছেন। এবার ঢাকা- ১৮ আসন থেকেই তাকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানাতে দেখা গেছে অনেককে। আবার উৎসাহী অনেকে বলছেন, হাবিব হাসান এবার ঢাকা-১৮ আসনে নৌকার টিকেট অবশ্যই পাবেন, স্থানীয় যারা আছেন তাদের মাঝেও তিনিই সেরা। নির্বাচন করার মতো সব রকম যোগ্যতাই উনার আছে। বৃহত্তর উত্তরা আওয়ামী লীগের একজন প্রতিষ্ঠিত নেতা হিসেবে তিনি ইতোমধ্যে সকলের নজরও কাড়তে সক্ষম হয়েছেন। অধিকংশ থানা এলাকার পদধারি নেতারাও নেমেছেন হাবিব হাসানের পক্ষে। 

তবে এ দুই মনোনয়ন প্রত্যাশীর বাইরের নেতারাও জাতীয় শোক দিবেসর বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করেছেন। সবছেড়ে বড় আয়োজন ছিল উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকার আজমপুরে। সেখানে সাহারা খাতুন ছিলেন প্রধান অতিধি। যুবলীগ মহানগর উত্তরের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন সরকার ভোজের আয়োজন করেছেন উত্তরার রাজলক্ষি এলাকায়। সেখানেও সাহারা খাতুন প্রধান অতিথি থেকে অনুষ্ঠান শুরু করেছেন। তাছাড়া উপস্থিত ছিলেন মহানগর উত্তর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন।

তাছাড়া উল্লেখযোগ্য আয়োজন নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন উত্তর যুবলীগের সহ-সম্পাদক আবুল কালাম রিপন, উত্তরা ৫১ নং ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা ইফতেখার জুয়েল ও ১ নং ওর্য়াড আওয়ামী লীগ নেতা রিকু খানসহ অনেকে।  

পিডিএসও/রিহাব