বিএনপির সমাবেশে নেতাকর্মীদের ঢল

প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ১৫:৩৬

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মামলা প্রত্যাহার, নিঃশর্ত মুক্তি ও তার বিরুদ্ধে সরকারের অমানবিক আচরণের প্রতিবাদে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে নির্ধারিত সময়ের আগেই দলে দলে নয়াপল্টনে আসছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার বিকেল ৩টায় নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এই বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও দুপুর ১২টার পরপরই নেতাকর্মীরা আসতে শুরু করেন।

দলের প্রধানের মুক্তির দাবিতে এই বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির কয়েকজন সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, যুগ্ম-মহাসচিবসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য দেবেন। 
 
গত ১৫ জুলাই নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ সমাবেশের ঘোষণা দেন।

এদিকে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা মোতায়েন রয়েছেন। কার্যালয়ের আশপাশে সাঁজোয়া যান ও জলকামান নিয়ে পুলিশের অবস্থান।

পুলিশের রমনা বিভাগের উপ কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার জানান, বিএনপি বা তার অঙ্গ সংগঠন সমাবেশ ডেকেছে, তারা সমাবেশ করবে। সমাবেশের নামে কেউ বিশৃঙ্খলা করলে পুলিশ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে।

পুলিশ বলছে, ২৩টি শর্তসাপেক্ষে বেলা ২টা থেকে বিকেল ৫টার মধ্যে বিএনপিকে ‘শান্তিপূর্ণ সমাবেশ’ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এসব শর্তের মধ্যে রয়েছে- বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে কর্মসূচির কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখা। রাস্তা ব্যবহার করে অথবা রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশ না করা। নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পর্যাপ্তসংখ্যক স্বেচ্ছাসেবক (দৃশ্যমান আইডি কার্ডসহ) রাখা। স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সমাবেশ কর্মসূচির ভেতরে-বাইরে সিসি ক্যামেরা ও গেটে আর্চওয়ে বসানো। ডিটেক্টরের মাধ্যমে তল্লাশি। নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় কর্মসূচিস্থলে আসা সব যানবাহনে তল্লাশি। অনুমোদিত স্থানের বাইরে মাইক/শব্দযন্ত্র ব্যবহার না করা।

এ ছাড়া শর্তে বলা হয়েছে, এই অনুমতি স্থান ব্যবহারের অনুমতি নয়। স্থান ব্যবহারের জন্য প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন নিতে হবে।

পিডিএসও/রিহাব