ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ৬ দিনের কর্মসূচি

প্রকাশ : ০২ জানুয়ারি ২০১৮, ০৯:১১

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আগামী ৪ জানুয়ারি। সংগঠনটির ৭০ বছরে আনন্দ র‌্যালি, রক্তদান কর্মসূচি, শিক্ষা উপকরণ ও শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানা কর্মসূচি নিয়েছে সংগঠনটি। তবে যানজটে জনভোগান্তির কথা বিবেচনা করে এ বছর ৪ জানুয়ারি র‌্যালি না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি। নির্ধারিত আনন্দ র‌্যালিটি হবে সরকারি ছুটির দিন শনিবার সকাল ১০টায়। ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতির পিতার নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণাঢ্যভাবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি নানা কর্মসূচি নিয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনে বেশ কয়েকটি উপ-কমিটি করা হয়েছে। নেয়া হয়েছে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা।

কর্মসূচিগুলোর মধ্যে ৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টায় ছাত্রলীগের সকল সাংগঠনিক কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন। সাড়ে ৭টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন। সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে কেক কাটা। ওইদিন রাজধানী ছাড়া দেশের অন্য সকল ইউনিটে আনন্দ র‌্যালি করা হবে। ৫ জানুয়ারি শুক্রবার  রাজধানীসহ সারাদেশে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করবে ছাত্রলীগ। ৬ জানুয়ারি সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ পর্যন্ত আনন্দ র‌্যালি হবে। সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটি ছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ এবং রাজধানীতে অবস্থিত ছাত্রলীগের সকল ইউনিটের নেতাকর্মীরা র‌্যালিতে অংশ নেবেন।

৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুর ২টায় ঢাবির স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্বরে দুস্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, ৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি এবং ১১ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বেলা ১০টায় অপরাজেয় বাংলায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করার কর্মসূচি নেয়া হয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল