কিছুই পাইনি : এরশাদ

প্রকাশ : ০১ জানুয়ারি ২০১৮, ২০:৪৬

অনলাইন ডেস্ক

আওয়ামী লীগকে ৩ বার ক্ষমতায় এনেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ দাবি করে বলেছেন, তাদেরকে ক্ষমতায় আনার বিনিময়ে কিছুই পাইনি। রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে আজ সোমবার পার্টির ৩২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আলোচনা সভায় তিন এসব কথা বলেন। জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য পানিসম্পদ মন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা প্রমুখ।
সভার আগে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করে জাতীয় পার্টি। এতে ব্যাপক শোডাউন করে দলটির মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতা ও তাদের সমর্থকরা। রাজধানীর বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড থেকে মিছিল নিয়ে তারা জড়ো হয় রমনায়। সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির নির্বাচনী এলাকা শ্যামপুর-কদমতলী থেকে আসা মিছিলে প্রেস ক্লাব থেকে শাহবাগমুখী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে বছরের প্রথম দিনে যানজটে পড়েন যাত্রীরা।
মিছিলে এরশাদ, রওশনসহ দলীয় নেতাদের প্রতিকৃতিবহন করেন কর্মীরা। ব্যানার, ফেস্টুন ও ব্যান্ড পার্টির বাজনায় উৎসবমুখর র‌্যালি হয়। এতে নেতৃত্ব দেন পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা সুজন দে, শেখ মাসুক রহমান, কাওসার আহমেদ। ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সেন্টু, নারায়গঞ্জ-৫ আসনের এমপি লিয়াকত হোসেন খোকার নেতৃত্বে আলাদা র‌্যালি বের হয়।
এরশাদ বলেন, আওয়ামী লীগ ৩ বার আমাদের সহযোগিতায় ক্ষমতায় এসেছে। বিনিময়ে কিছুই পাইনি। ১৯৯৬ সালে বিএনপি প্রধানমন্ত্রীর  প্রস্তাব দিয়েছিল, তা প্রত্যাখান করে আওয়ামী লীগকে সমর্থন করেছিলাম। তার অভিযোগ, বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল আওয়ামী লীগ। জাপার তৎকালীন মহাসচিব আনোয়ার হোসেন মঞ্জুকে দিয়ে দল ভাঙ্গায়। জাপার ৩৫ এমপির ১৪ জনকে কিনে নেয়।
২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট বেঁধে নির্বাচন করে বঞ্চনার শিকার হন বলেও দাবি করে এরশাদ বলেন, কথা ছিল ৪৮টি আসন দেবে। কিন্তু দেয়া হয় মাত্র ৩৩টি। এর মধ্যে ২৯টিতে জয়ী হয় জাপা। বিএনপি পায় ৩০টি। ১৫টি আসন কেড়ে না নিলে জাপাই প্রধান বিরোধীদল হতো। কিন্তু আওয়ামী লীগ তা হতে দেয়নি।
বিএনপিবিহীন ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে রওশন এরশাদের নেতৃত্বে জাপার একাংশ অংশ নেয়। এরশাদ দাবি করেন, জাপা নির্বাচনে অংশ না নিলে ইতিহাস অন্যভাবে লেখা হতো। তিনি অভিযোগ করেন, এবারও তাকে ও জাপাকে মূল্যায়ন করেনি আওয়ামী লীগ। বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, সীমাহীন অত্যাচার করে বিএনপি জাপাকে নিঃশেষ করে দিতে চেয়েছিল। তাকে বিনা দোষে কারাবন্দি করে রাখে।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে এরশাদ বলেন, আল্লাহ আছেন, বিচার আছে। আমাকে জেল দিয়েছিলেন। এখন জেল আপানার (খালেদা জিয়া) অতি সন্নিকটে। অনেক অন্যায় করেছেন, তার প্রতিফল পাচ্ছেন। তিনি দাবি করেন, তার শাসনামল বৈধ ছিল। রাষ্ট্রপতি আব্দুস সাত্তার দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়ে তার হাতে ক্ষমতা তুলে দিয়েছিলেন। 
ক্ষমতা থেকে পতনের পর জাপার ভোট দিন দিন কমছে। তবে এরশাদের দাবি, গত মাসে রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জয়ী হয়ে জাতীয় পার্টি ঘুরে দাঁড়িয়েছে। রওশন এরশাদ বলেন, জনগণ এখন সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। জাপাও তাই চায়। রংপুরে এর প্রতিফলন ঘটেছে। পার্টিকে সংগঠিত করতে নেতাকর্মীদের কাজ করার নির্দেশ দিয়ে তিনি আরও বলেন, কারো দাবার গুটি হতে চাই না। রাজা হতে চাই। দেশবাসীর ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটাতে চাই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পিডিএসও/মুস্তাফিজ