অবশেষে পোপের মুখে উচ্চারিত হল রোহিঙ্গা শব্দ

প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর ২০১৭, ২১:১৮ | আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০১৭, ২১:৪৯

অনলাইন ডেস্ক

দক্ষিণ এশিয়া সফরে এসে সচেতনভাবে শব্দটি এড়িয়ে গেলেও অবশেষে এই ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি উচ্চারণ করলেন খ্রিস্টানদের প্রধান ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস। আজ শুক্রবার মিয়ানমার থেকে গণহত্যা ও নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়া ১৮ রোহিঙ্গা পোপের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এই সময় পোপ রোহিঙ্গা শব্দটি উচ্চারণ করে বলেন, আজ সৃষ্টিকর্তার উপস্থিতি রোহিঙ্গাদের মাঝেও। এর মধ্যদিয়ে তিনি তার পুরো সফরে বাংলাদেশে আসার পর এই প্রথমবারের মতো রোহিঙ্গা শব্দটি উচ্চারণ করলেন।
সীমান্ত এলাকার একটি শিবির থেকে ১৮ রোহিঙ্গাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। এরা মোট ৩টি পরিবারের সদস্য বলে জানা গেছে। ঢাকায় খ্রিস্টানদের প্রধান গির্জা বিশপ হলে তাদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর পোপ যা বলেছেন তা অনুবাদ করলে দাঁড়ায় আজ সৃষ্টিকর্তার উপস্থিতি রোহিঙ্গাদের মাঝেও। এর আগে পোপ ফ্রান্সিস মিয়ানমার সফরের সময় রোহিঙ্গা শব্দটি একবারের জন্যেও উচ্চারণ করেননি। একারণে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন তার তীব্র নিন্দা করেছে।
বাংলাদেশে আসার পরেও অনেকের কৌতূহল ছিল যে তিনি রোহিঙ্গা শব্দটি বলেন কি না। কিন্তু এশিয়া সফর শুরু করার আগে পোপ ফ্রান্সিস রোহিঙ্গা শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন। মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ রোহিঙ্গাদের আলাদা জাতিগোষ্ঠী হিসেবে স্বীকার করে না। তাদের কাছে রোহিঙ্গারা অবৈধ বাঙালি। প্রসঙ্গত দেশটির সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ যে তারা রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে। তাতে গত আগস্ট মাসের পর থেকে ৬ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। সেনাবাহিনীর এই অভিযানকে জাতিসংঘ উল্লেখ করছে জাতিগত নিধন অভিযান হিসেবে।

পিডিএসও/মুস্তাফিজ