সংবাদ স‌ম্মেল‌নে আনিসুল হক

‘চিকুনগুনিয়া মহামারির জন্য ডিএনসিসি দায়ী নয়’

প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৭, ১৪:৩১

অনলাইন ডেস্ক

চিকুনগুনিয়া মহামারির আকার ধারণ করেছে বলে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের তিন বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিগত মত প্রকাশ করেছেন। তবে এ মহামারির দায়দায়িত্ব ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নয় বলে দাবি করেছেন মেয়র আনিসুল হক। তিনি বলেন, মহামারি হয়েছে কিনা তা সরকার দেখবে। মহামারির জন্য ডিএনসিসি দায়ী নয়।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নগর ভবনে শুক্রবার চিকুনগুনিয়া রোগের প্রাদুর্ভাব এবং ডিএনসিসি গৃহীত কার্যক্রম শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, চিকুনগুনিয়া রোগ মহামারির আকার ধারণ করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ডিএনসিসি মশক নিয়ন্ত্রণ দুই বিশেষজ্ঞ প্রফেসর মাহমুদুর রহমান ও ডা. মুনজুর এ চৌধুরী সরাসরি নিজেদের ব্যক্তিগত মতামতে বলেন, চিকুনগুনিয়া মহামারির আকার ধারণ করেছে। তবে সরাসরি না বললেও অপর এক বিশেষজ্ঞ ডা. তৌহিদ উদ্দিন আহমেদ সমর্থন দিয়ে গেছেন।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রকাশ করা তথ্যানুযায়ী চিকুনগুনিয়া রোগীর সংখ্যা ৬৪৯ জন সঠিক নয় উল্লেখ করে মেয়র বলেন, বাস্তবে চিকুনগুনিয়া রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি। চিকুনগুনিয়া রোগ বহনকারী এডিস মশা বাসাবাড়ির ভেতরে প্রজনন করে যা নিধন করা সিটি করপরেশনের পক্ষে সম্ভব নয় জানিয়ে আনিসুল হক বলেন, বাসাবাড়ির নিরাপত্তাজনিত কারণে কীটনাশক প্রয়োগ করা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, চিকুনগুনিয়া ভাইরাস দেশের বাইরে থেকে এসে থাকতে পারে। কিংবা আফ্রিকা থেকে অনেক মানুষ ঢাকায় এসেছেন তাদের মাধ্যমে ছড়াতে পারে।

আগাম কোনো বার্তা না থাকায় চিকুনগুনিয়ায় বিগত দিনের থেকে বেশিসংখ্যক আক্রান্ত হয়েছে মেয়রের এমন এক বক্তব্যের সূত্র টেনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে জানানো হয়, গত বছরের ডিসেম্বরে ৩০ জন চিকুনগুনিয়ায় আক্রন্ত সনাক্ত হয়েছিল। তাহলে কত দিন হলে আগাম বার্তা বলে বিবেচনা করা হবে? জবাবে আনিসুল হক বলেন, এমন তথ্য আমার জানা নেই।

সংবাদ সম্মেলনে বারবার উল্লেখ করা হয়েছে, ড্রেনের মশার জন্য চিকুনগুনিয়া হয় না। তবে চিকুনগুনিয়া আক্রান্তকে অন্য মশা কামড়ালে সেই মশা থেকেও এই রোগ ছড়াতে পারে। আমাদের অনেক দোষ আছে। তবে যেখানে ৫ দিন পর পর মশা নিধনের ওষুধ প্রয়োগের কথা, সেখানে আমরা তিন দিন পরপর প্রয়োগ করছি। কোনোভাবে দায়ভার ডিএনসিসির নয়।

তিনি বলেন, চিকুনগুনিয়া আক্রান্তকে মশারির মধ্যে রাখা দরকার। তাও যদি মানুষকে জানাতে হয় তাহলে আর কী বলব। আমার পক্ষে ঘরে ঘরে গিয়ে মশারি টানানো, ঘরের মশা নিধন করা সম্ভব নয়। সবাইকে সচেতন হতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মেসবাউল ইসলাম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এস এম এম সালেহ ভূঁইয়া, প্রধান বর্জ কর্মকর্তা কমডোর আবদুর রাজ্জাক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পিডিএসও/হেলাল​