করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুতে লাশ দাফনে বাধা

প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২০, ০৯:১৯

অনলাইন ডেস্ক

করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে আসাদ মিয়া (৫৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

ওই ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল কিনা তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত লাশ দাফনে বাধা দেয় এলাকাবাসী। এ ঘটনার পর ওই ব্যক্তির লাশ তার বাড়িতেই ফেলে রাখা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের চেলারচর গ্রামের আসার মিয়া ঠান্ডা, জ্বর ও গলা ব্যথা শুরু হলে তিনি তার বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যান।

৬-৭ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর শনিবার দুপুরে তিনি মারা যান। মারা যাওয়ার পর এলাকাবাসী তার নমুনা পরীক্ষা ছাড়া লাশ দাফন করতে বাধা দেয়।

আসাদ মিয়ার ফুফাতো ভাই দিদার হোসেন বলেন,৭ দিন আগে নারায়ণগঞ্জে নিজের ছেলের বাসা থেকে গ্রামে আসেন আসাদ মিয়া। এলাকার পঞ্চায়েত কমিটি এটা জানার পর তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার অনুরোধ করেন।

শনিবার আসাদ মিয়া প্রচণ্ড জ্বর, ঠান্ডা ও গলা ব্যথা নিয়ে মারা যান। এঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে এলাকাবাসী লাশ দাফনে বাধা দেয়।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, করোনার উপসর্গ নিয়ে আসাদ মিয়া মারা যাওয়ায় তার লাশের সামনে কেউ যেতে চাচ্ছে না।

তাছাড়া তার শরীরে করোনাভাইরাস ছিলো কিনা এটা নিশ্চিত হওয়ার জন্য এলাকাবাসী লাশ দাফনে বাধা দিয়েছে। এব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে। প্রশাসনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক লাশ দাফন করতে দেয়া হবে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইদুল ইসলাম জানান, জ্বর, ঠান্ডা ও গলা ব্যথা নিয়ে আসাদ মিয়ার মারা যাওয়ার খবর পেয়েছি। তিনি করোনায় আক্রান্ত ছিল কি না তা যাচাইয়ের জন্য নমুনা সংগ্রহ করতে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নমুনা সংগ্রহের পর লাশ দাফন করা হবে।