ব্যস্ত ঢাকা এখন ‘অচেনা’ শহর

প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল ২০২০, ০৮:২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ (কোভিড-১৯) ঠেকাতে সরকার চার দফায় ৩১ দিন সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এই সময়ের মধ্যে জনগণকে ঘর থেকে বের না হতে দেওয়া হয়েছে নির্দেশনা। প্রথমদিকে এ নির্দেশনা নগরবাসী না মানলেও সরকার গত শুক্রবার থেকে কড়াকড়ি আরোপ করায় যানবাহন শূন্য ও ফাঁকা দেখা যাচ্ছে রাজধানীর সড়কগুলো।

গতকাল রোববার রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী, রোকেয়া সরণি, বিজয় সরণি, ফার্মগেট, মৎস্য ভবন, মতিঝিলের শাপলা চত্বর ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র। এসব এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ছুটির দিন যত গড়াচ্ছে রাজধানীর ব্যস্ততম সড়কগুলোতে লোকজনের সমাগম কমছে। অচেনা শহরে পরিণত হয়েছে ব্যস্ততম ঢাকা। জীবনের তাগিদে অনেকে বের হলেও করোনা আতঙ্কের মধ্য রয়েছেন সবাই। সড়কে যারা বের হয়েছেন তাদের মাস্ক, গ্লাভস ও হাতে স্যানিটাইজারও দেখা গেছে।

মতিঝিলে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত সাইদুর রহমান বলেন, অতি প্রয়োজন ছাড়া বাসা থেকে বের হচ্ছি না। সবকিছুর আগে নিজেকে নিরাপদ রাখতে হবে। তারপর সবকিছু। এ কদিন বাসা থেকে বের হইনি। আজ বের হয়েছি ব্যাংকে যাব কিছু টাকা তুলতে। টাকা তুলে কিছু বাজার করে আবার বাসায় ঢুকে পড়ব। সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটি আমাদের নিরাপত্তার জন্যই। তাই সবারই উচিত ঘরে থাকা।

এদিকে প্রধান সড়কগুলোর ফুটপাতের পাশের দোকানপাট রয়েছে বন্ধ। অলিগলির ভেতরে চায়ের দোকান, মুদি দোকান সকাল থেকে খোলা থাকলে দুপুর ২টার পর সব বন্ধ দেখা গেছে।

অন্যদিকে জনসমাগম ঠেকাতে রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে আজো দেখা গেছে পুলিশের চেকপোস্ট। জনগণকে বাড়ি থেকে বের হতে নিরুৎসাহিত করছেন তারা। তবে প্রতিনিয়ত আমাদের দেশেও করোনা সংক্রমণজনিত স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়েই চলেছে। এই অবস্থায় স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে নগরবাসীকে। সচেতনতাই পারে এই মহামারি থেকে আমাদের রক্ষা করতে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

পিডিএসও/তাজ