কর্মশালায় স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

এসডিজির সফল বাস্তবায়ন নির্ভর করে জনগণের উপর

প্রকাশ : ১৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:০৬ | আপডেট : ১৫ জানুয়ারি ২০২০, ১৮:১৭

অনলাইন ডেস্ক
ছবি : মুঈদ খন্দকার

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) একটি বহুমাত্রিক পরিকল্পনা। এতে মানব উন্নয়ন, সামাজিক উন্নয়ন, অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও পরিবেশগত উন্নয়ন অন্তর্ভুক্ত। আমরা সমন্বিত ও সামগ্রিক পরিকল্পনার মাধ্যমে এসডিজির লক্ষ্যসমূহ অর্জন করতে পারব বলে আশা করি। এজন্য আমরা সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি)-র অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান কাজে লাগাবো।

মন্ত্রী বলেন, এসডিজির সফল বাস্তবায়ন নির্ভর করবে মূলত জনগণের উপর। তাই এসডিজির স্থানীয়করণ বা লোকালাইজেশন গুরুত্বপূর্ণ।

বুধবার রাজধানীর কাকরাইলে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর অডিটোরিয়ামে স্থানীয় সরকার বিভাগ আয়োজিত “এসডিজি অগ্রগতি পর্যালোচনা, ২০২০” শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণ ঘটেছে। এলডিসি ক্যাটাগরি থেকে উত্তরণের জন্য মাথাপিছু আয়, মানব সম্পদ সূচক এবং অর্থনৈতিক ভঙ্গুরতা সূচক এ তিনটি সূচকের যে কোনও দুটি অর্জনের শর্ত থাকলেও বাংলাদেশ তিনটি সূচকের মানদণ্ডেই উন্নীত হয়েছে। এটি সম্ভব হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশের সাহসী এবং অগ্রগতিশীল উন্নয়ন কৌশল গ্রহণের ফলে। বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হওয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরও বৃদ্ধির জন্য সকলকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।

কর্মশালায় জানানো হয়, এসডিজি’র ১৭টি অভিষ্ট রয়েছে। প্রতিটি অভিষ্টের জন্য একাধিক টার্গেট চিহ্নিত করে ১৬৯টি টার্গেট নির্ধারণ করা হয়েছে। এর মধ্যে মানুষের স্বাধীনতা, সমতা ও মানবাধিকারের বিষয় অন্তর্ভুক্ত। এতে কাউকে বাদ না দিয়ে সবাইকে অন্তর্ভুক্ত করে এগিয়ে যাবার কথা বলা আছে। স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে ১৬টি অভিষ্ট এবং ৫৯টি টার্গেট বাস্তবায়নে জড়িত। উক্ত টার্গেট সমূহের মধ্যে ১৩টিতে প্রধান, ১টিতে সহ প্রধান এবং ৪৫টিতে সহযোগী বাস্তবায়নকারী হিসাবে স্থানীয় সরকার বিভাগ জড়িত।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ। কর্মশালায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের যুগ্ম-প্রধান আবু মুহাম্মদ মইনুদ্দীন কাদেরী।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ জহিরুল ইসলাম, ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সুশঙ্কর চন্দ্র আচার্য, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ সাইফুর রহমান ।

পিডিএসও/রি.মা

সর্বাধিক পঠিত