সেমিনারে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

কমিউনিটি ভিত্তিক গ্রাম রুপান্তর করা হবে

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৯:২৭ | আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:১৫

হাসান ইমন
সেমিনারে বক্তব্য রাখছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম (ছবি : মু্ঈদ খন্দকার)

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, আমার গ্রাম-আমার শহর এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রতিটি গ্রামকে কমিউনিটি ভিত্তিক তৈরি করা হবে। যেখানে পরিকল্পিতভাবে আবাসিক এলাকা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সুয়্যারেজ সিস্টেম, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকবে। সে আলোকে কাজ চলছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশ এর হল রুমে, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি আয়োজিত স্মার্ট সিটি ইনিশিয়েটিভস ইন বাংলাদেশ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মো. তাজুল ইসলাম বলেন, আরো ১০ বছর আগে গ্রামে ব্যক্তিগত গাড়ি ছিল হাতেগোনা কয়েকটা। তখন আমাদের আয় ছিল ৫০০ ডলার। এখন ২ হাজার ডলারের কাছাকাছি, আর কয়েকশত গাড়ি। আমাদের আয় যখন ৬ হাজার ডলার হবে। তখন আমাদের প্রত্যেকের গাড়ি হবে। ঐসময় গ্রামেও হবে কয়েক হাজার গাড়ি। তখন এলাকায় ট্রাফিক সমস্যা তৈরি হবে। আমরা সে আলোকেই পরিকল্পনা করে যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি করছি।

তিনি বলেন, ঢাকা শহর একটি অপরিকল্পিত নগরী। যেখানে যোগাযোগের জন্য মাত্র ৭ শতাংশ জায়গা রাখা হয়েছে। এই কমসংখ্যক জায়গার কারণে বর্তমানে আমাদের ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নতি করা যাচ্ছে না। কারণ সড়কে প্রচুর গাড়ির সংখ্যা বেড়েছে। শহরে মানুষও বেড়েছে। যদিও আমাদের অর্থনীতির গ্রোথ বেড়েছে। সে অনুযায়ি যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি করা যায়নি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকা শহরকে স্মার্ট নগরী গড়তে আমরা কাজ শুরু করেছি। ইতোমধ্যে আমরা নগর অ্যাপস নামক একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছি। যার মাধ্যমে এখন ৭ শতাংশ মানুষ অনলাইনে কর পরিশোধ করছে। আগামী দুই বছরের মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাধীন নগরবাসীরা ঘরে বসে অনলাইনে ট্যাক্স পরিশোধ করতে পারবেন।

সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. হোসেন মনসুর। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সচিব প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর।
সেমিনারে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নুর, বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মো. হাবিবুর রহমান ও আইইইই বাংলাদেশ সেকশনের সভাপতি সেলিয়া শাহনাজ।

পিডিএসও/রি.মা