ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

প্রকাশ : ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৮:২৫

নিজস্ব প্রতিবেদক

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বাংলাদেশ উপকূলের ৪৫০ কিলোমিটারের মধ্যে পৌঁছে যাওয়ায় মোংলা ও পায়রায় ৭ নম্বর এবং চট্টগ্রাম বন্দরে ৬ নম্বর বিপদসংকেত জারি হয়েছে। পাশাপাশি কক্সবাজারে আগের মতোই ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দিন জানান, গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় এ ঝড় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৬২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল। ওই সময় ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১২০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়োহাওয়ার আকারে ১৪০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছিল।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আপাতত এর গতিমুখ সুন্দরবনের দিকে। ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসায় সারা দেশে সব ধরনের নৌ-চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

এদিকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান গতকাল জানান, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আজ শনিবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাতের মধ্যে যেকোনো সময় বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এ সময় সৃষ্ট জলোচ্ছ্বাসের উচ্চতা পাঁচ থেকে সাত ফুট পর্যন্ত হতে পারে বলে জানিয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যায় সচিবালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান প্রতিমন্ত্রী। বুলবুলের সম্ভাব্য এই হানার মুখে গতকাল বিকেলে সচিবালয়ে জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির বৈঠক হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রতিমন্ত্রী।

পরে সংবাদ ব্রিফিংয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, বরগুনা, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও ভোলা জেলাকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় রাখা হয়েছে। সাত জেলার আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে লোক সরিয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি রয়েছে। আশ্রয় কেন্দ্রগুলোয় ২০০০ প্যাকেট করে শুকনো খাবার পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান বলেন, ইতোমধ্যে উপকূলীয় প্রতিটি জেলার প্রশাসকদের সঙ্গে আমাদের ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা হয়েছে। গতকাল প্রতিটি জেলায় দুর্যোগ প্রস্তুতি কমিটির সভা হয়েছে। তারা যথাযথ প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও জেলা উপজেলা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

২২ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল : ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় সংশ্লিষ্ট ২২টি মন্ত্রলণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ জেলা-উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ড. মো. এনামুর রহমান এ কথা জানিয়ে বলেন, এরই মধ্যে সাইক্লোন শেল্টারসহ উপকূলের আশ্রয়কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি সাইক্লোন শেল্টারে দুই হাজার প্যাকেট করে শুকনো খাবার ও নগদ পাঁচ লাখ করে টাকা পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সারা দেশে নৌ-চলাচল বন্ধ : ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসায় সারা দেশে সব ধরনের নৌ-চলাচল বন্ধ ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপ?রিবহন কর্তৃপ?ক্ষ। সংস্থাটির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোবারক হোসেন মজুমদার গতকাল সন্ধ্যায় বলেন, অভ্যন্তরীণ নৌ-পথে ৪ নম্বর হুশিয়ারি সংকেত জারি হওয়ায় সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা ৭টা থেকে এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তা বলবৎ থাকবে।

‘বুলবুল’ মোকাবিলায় প্রস্তুত উপকূল : ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর কারণে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। উপকূলীয় অঞ্চলে ঝরছে বৃষ্টি। সম্ভাব্য দুর্যোগ মোকাবিলায় গতকাল ছুটির দিনটিতেও দুর্যোগ মোকাবিলায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটিগুলো জরুরি সভা করেছে। দুর্যোগ-পরবর্তী চিকিৎসাসেবার জন্য মেডিকেল টিম গঠনসহ দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ-পরবর্তী সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়েছে জেলা প্রশাসনগুলো। প্রস্তুত করা হচ্ছে দুর্যোগপ্রবণ এলাকার আশ্রয়কেন্দ্রগুলো।

রাসমেলা হচ্ছে না, সুন্দরবনে যাওয়াও বন্ধ : খুলনা ব্যুরো ও বাগেরহাট প্রতিনিধি জানান, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুলের’ প্রভাবে বৈরী আবহাওয়ার কারণে বাগেরহাটের দুবলার চরে হতে যাওয়া রাসমেলা বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। আজ বিকেল থেকে রাসমেলার দর্শনার্থীদের যাত্রা শুরুর সময় নির্ধারিত ছিল। এদিন দুপুর নাগাদ মেলায় যাওয়ার অনুমতি বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত আসার কথা ছিল। তবে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে গতকাল দুপুরেই রাসমেলা বাতিলের সিদ্ধান্ত জানিয়েছে বনবিভাগ।

পিডিএসও/তাজ