সংসদে আইনমন্ত্রী

৪ লাখ ৫৮ হাজার ৫৬ জনকে বিনামূল্যে আইনি সহায়তা

প্রকাশ | ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:৫৭

সংসদ প্রতিবেদক

সংসদে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ২০০৯ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত নারী-পুরুষ ও শিশুসহ সর্বমোট ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৫৬ জন বিচার প্রার্থী জনগণকে আইনগত সহায়তা দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সংসদে মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা বলেন। এর আগে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের অধিবেশন শুরু হয়। চলতি সংসদের এমপি হওয়ায় মঈনউদ্দীন খান বাদলের মৃত্যুতে সংসদে শোক প্রস্তাব আনার পর তাকে নিয়ে আলোচনার পর সংসদ সংসদ মুলতিব করা হয়। এর আগে প্রশ্নোত্তরপর্ব টেবিলে উত্থাপন করা হয়।

আনিসুল হক বলেন, আর্থিক অসচ্ছলতা, সম্বলহীন এবং নানাবিধ আর্থসামাজিক কারণে বিচারপ্রার্থীকে অসমর্থ জনগোষ্ঠীর আইনি অধিকার নিশ্চিত কল্পে তাদেরকে আইনগত সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যে সরকার ২০০০ সালে ‘আইনগত সহায়তা প্রদান আইন, ২০০০’ প্রণয়ন করে।

আইনমন্ত্রী বলেন, এই আইনের আওতায় সরকার জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা প্রতিষ্ঠা করে এবং দরিদ্র অসহায় মানুষের আইনের আশ্রয় লাভ ও আইনি কাঠামোর প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে এ সংস্থার অধীনে প্রত্যেক জেলা জজ আদালত প্রাঙ্গণে জেলা লিগ্যাল এইড অফিস প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। দেশের সর্বোচ্চ আদালতে আইনি সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করার জন্য স্থাপন করা হয়েছে সুপ্রিম কোর্ট লিগ্যাল এইড অফিস।

এ ছাড়া উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়েে ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি গঠন করা হয়েছে। চৌকি আদালত গঠিত হয়েছে বিশেষ কমিটি। সরকার জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার তত্বাবধানে এসব কমিটির অফিসের মাধ্যমে দরিদ্র সুবিধাবঞ্চিত ও বিচারপতি অসমর্থ প্রান্তিক পর্যায়ের বিচার প্রার্থী ও শ্রমজীবী জনগণকে সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদান করছে।

পিডিএসও/হেলাল