​ইউনিয়ন পরিষদকে কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

প্রকাশ : ২২ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৫১ | আপডেট : ২২ আগস্ট ২০১৯, ১৬:৫১

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম বলেছেন, ইউনিয়ন পরিষদকে যদি সক্ষমতা না বাড়ানো যায়, তাহলে আমরা উন্নয়নের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নির্বাচনী ইস্তেহারে গ্রামকে উন্নয়নের কথা বলেছেন। সেজন্য ইউনিয়ন পরিষদ উন্নয়ন না হলে দেশ এগিয়ে যাবে না। সে লক্ষ্যে পৌঁছাতে ইউনিয়ন পরিষদকে আরো কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে। 

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মতিঝিল সিটি সেন্টারে লোকাল গর্ভানেস প্রজেক্ট (এলজিপিএস-৩) এর কার্যক্রম বাস্তবায়ন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। 

মতবিনিময় সভায় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দিন আহমদসহ এলপিজিএস-৩ এর প্রকল্প কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

তাজুল ইসলাম বলেন, প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদকে আয় বাড়াতে হবে। তাদের আয়ের অনেক খাত রয়েছে। সেগুলো ব্যবহার করে নানা অবকাঠামো বা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করতে হবে। যে প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারণ মানুষের কাজে আসে। ওই সেবা দিয়ে মানুষের কাছ থেকে কিছু অর্থ নিতে হবে। এভাবে তাদের সক্ষমতাও বাড়তে হবে।

জনসাধারণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে সরকার ইউনিয়ন পরিষদকে শক্তিশালী করার জন্য যে সকল কার্যক্রম গ্রহণ করেছে তার মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য হচ্ছে এলজিএসপি-৩ এর বাস্তবায়ন। এ প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় জনগণ সরাসরি অংশ গ্রহণের মাধ্যমে তাদের অগ্রাধিকার অনুযায়ী উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তাবায়ন করছে। 

প্রকল্পটির মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৫৩৫ কোটি টাকা যার মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের অর্ ৩১৫৩ কোটি টাকা এবং বিশ্বব্যাংকের ঋণ ২৩৮২ কোটি টাকা। জানুয়ারি ২০১৭ তে শুরু হওয়া ৫ বছর মেয়াদী প্রকল্পটি শেষ হবে ২০২১ সালের ডিসেম্বরে। প্রকল্প হতে দেশের ৪৫৭১ টি ইউনিয়ন পরিষদের ব্যাংক হিসাবে সরাসরি থোক বরাদ্দের অর্ প্রেরণ করা হয়। 

পরে মন্ত্রী আমার অ্যাপ নামের একটি মোবাইল অ্যাপের উদ্বোধন করেন। অ্যাপটির মাধ্যমে ইউনিয়ন পর্ায়ে স্কিম বাস্তবায়ন কার্ক্রম মনিটরিং করা সহজ হবে। 

পিডিএসও/রি.মা