বিনম্র শ্রদ্ধায় বঙ্গবন্ধুকে সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা

প্রকাশ | ১৫ আগস্ট ২০১৯, ১৮:১৪ | আপডেট: ১৬ আগস্ট ২০১৯, ১০:৩১

অনলাইন ডেস্ক

বিনম্র শ্রদ্ধা, ভালোবাসা আর গভীর শোকাবহ পরিবেশে জাতি স্মরণ করছে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

জাতীয় শোক দিবসের শুরুতেই বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতে লাখো মানুষ সমবেত হয় রাজধানীর ধানমন্ডির ৩২ নম্বরের বঙ্গবন্ধু ভবনের সামনে। সেখানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে তারা জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানান। জাতীয় শোক দিবসে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন। 

এছাড়া সারাদেশে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় শোক র‌্যালি, আলোচনা অনুষ্ঠান ও দোয়া অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানকে স্মরণ করছে।

আজ সকাল সাড়ে ৬টায় জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা।

পরে মোহাম্মদ নাসিমের নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ১৪ দলের নেতারা। 

প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ধানমণ্ডি ৩২ নম্বর সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য খুলে দেওয়া হয়। এ সময় মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, তাতী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি হাজারো মানুষ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান।

এ সময় বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাইদ খোকন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব এবং বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র কর্মকর্তা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

সকাল৬টার মধ্যেই অগণিত মানুষের পদচারণায় ভরে ওঠে ৩২ নম্বর সড়ক। হাতে কালো ব্যানার ও বুকে কালোব্যাজ ধারণ করে নারী-পুরুষ, স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, শিশু-কিশোরসহ সর্বস্তরের মানুষ। হালকা বৃষ্টি হলেও লাইনে দাঁড়িয়ে থাকে হাজারো মানুষ। ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় জাতির পিতাকে।

অন্যদিক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ সময় সশস্ত্র বাহিনী কর্তৃক অনার গার্ড প্রদান করা হয়। বিউগলে বেজে ওঠে করুণ সুর। অশ্রু সিক্ত নয়নে কিছু সময় দাঁড়িয়ে থাকেন প্রধানমন্ত্রী। পরে তিনি ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাতে অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পক্ষে জাতির পিতার সমাধিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। এ সময় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ দলের সিনিয়র নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্য উপাসনালয়ে প্রার্থনা : বঙ্গবন্ধুর ৪৪ তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গোপালগঞ্জ, টুঙ্গিপাড়া, কোটালীপাড়া,  মুকসুদপুর ও কাশিয়ানী উপজেলার বিভিন্ন সমজিদে দোয়া ও মোনাজাত হয়েছে। গোপালগঞ্জ কেন্দ্রীয় সার্বজনীন কালিবাড়ি, লেকপাড় লোকনাথ মন্দিরসহ জেলার বিভিন্ন মন্দির ও গীর্জায় বঙ্গবন্ধুর আত্মার শান্তি কামনায় বিশেষ প্রার্থনা হয়।

সমাধি সৌধে শোকার্ত মানুষের ঢল : প্রধানমন্ত্রী টুঙ্গিপাড়া ত্যাগ করার পর বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে ঢল নামে শোকার্ত মানুষের। শোকের চিহ্ন কলো ব্যাচ বুকে ধারণ করে পুস্প স্তবক, ফুলে তোড়া ও ফুল নিয়ে সমাধিসৌধ কমপ্লেক্সে আসেন। শতাব্দীর মহানায়কের সমাধিসৌধ বেদীতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়ে তার জন্য দোয়া মোনাজাত করেন। 

দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত আওয়ামীলীগ ও সহযোগি, শ্রমজীবি, পেশা জিবি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের হাজার হাজার নেতা কর্মী শোকার্ত পরিবেশে বঙ্গবন্ধুর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান। এছাড়া বিভিন্ন বয়সের মানুষ বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে এসে পুস্পস্তবক অর্পন করেন। দিনব্যাপী চলে শ্রদ্ধা নিবেদনের পালা।  ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় সবার সেরা বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধুর টুঙ্গিপাড়ার সমাধিসৌধ। 

গরিব মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে গোপালগঞ্জ জেলার ৬৮ টি ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে, বিভিন্ন গ্রামে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল শেষে গরীব মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়। এছাড়া গোপালগঞ্জ, মুকসুদপুর, কোটালীপাড়া পৌর এলাকায় বিভন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন, ব্যবসায়ী সমতির উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর জন্য দোয়া মোনাজাত শেষে খাবার বিতরণ করা হয়। 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শোক দিবস : গোপাগঞ্জ জেলার ৫ উপজেলার স্কুল, কলেজ সহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, চিত্রাংকণ, রচনা, প্রতিযোগিতা, আলোচনা সভা, দোয়া, মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে এ বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে দিবসটি পালন করা হয়। 

পিডিএসও/তাজ