বর্জ্য অপসারণ

রাজধানীতে মাঠে ১৪ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী

প্রকাশ : ১২ আগস্ট ২০১৯, ১১:৫২

অনলাইন ডেস্ক

সারাদেশে পালিত হচ্ছে ঈদুল আজহা। ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হয়ে এদিন সারাদেশের ন্যায় রাজধানীতে কোরবানি হবে প্রায় পাঁচ লাখ পশু। আর এসব পশুর বর্জ্য অপসারণে আজ দুপুর থেকে রাজধানীজুড়ে থাকবেন প্রায় ১৪ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী। নগরবাসীকে স্বস্তি দিতে এবার এ ব্যবস্থা নিয়েছে দুই সিটি করপোরেশন।

ঢাকা উত্তর (ডিএনসিসি) ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের বিভিন্ন কর্মকর্তারা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বর্জ্য অপসারণে গত শনিবার রাতের মধ্যেই বিভিন্ন ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে পৌঁছে গেছে বর্জ্য বহনকারী ব্যাগ, বস্তা, ব্লিচিং পাউডার, ফিনাইলসহ অন্য যাবতীয় জিনিস। এছাড়াও পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের পাশাপাশি প্রস্তুত রাখা হয়েছে বর্জ্য অপসারণের জন্য বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। ভ্যান, ছোট পিকআপ থেকে শুরু করে বড় ট্রাক আছে এসব যানবাহনের মধ্যে।

সোমবার দুপুর ২টায় উত্তরা থেকে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম। অন্যদিকে দুপুর পৌনে ৩টায় ধোলাইখালের সাদেক হোসেন খোকা মাঠের সামনের জায়গা থেকে নিজ এলাকায় বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

ডিএনসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা ক্যাপ্টেন মঞ্জুর হোসেন জানান, বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ডিএনসিসিতে এবার প্রায় ছয় হাজার কর্মী কাজ করবে। এদের মধ্যে ডিএনসিসির নিয়মিত কর্মী প্রায় আড়াই হাজার এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পিডাব্লিউসিএসপিএর প্রায় সাড়ে চার হাজার কর্মী বর্জ্য অপসারণে কাজ করবেন।

অন্যদিকে ডিএসসিসির প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমোডর জাহিদ হোসেন জানান, তাদের নিয়মিত কর্মী পাঁচ হাজার ২শ ৪১ জন। সঙ্গে থাকছে পিডাব্লিউসিএসপিএর প্রায় তিন হাজার কর্মী। এছাড়াও দ্রুততম সময়ে বর্জ্য অপসারণে অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়া পরিচ্ছন্নতাকর্মী থাকছে দুই সিটিতেই। সব মিলিয়ে ১৪ হাজারের বেশি পরিচ্ছন্নতাকর্মী এবার থাকছে রাজধানীতে কোরবানি হওয়া পশুর বর্জ্য অপসারণ মিশনে।

একই সঙ্গে ঈদুল আজহার প্রথম দিনেই প্রায় ১৮ লাখ টন বর্জ্য উৎপন্ন হবে এমন লক্ষ্যমাত্রা নিয়েই সেগুলো অপসারণে ছক কষেছে দুই সিটি।

পিডিএসও/হেলাল