‘সকল গ্রাম শহরে রুপান্তর হচ্ছে’

প্রকাশ : ১১ জুন ২০১৯, ১৭:৫৫

নিজস্ব প্রতিবেদক

শহরের সুবিধা গ্রামে যাচ্ছে। এখন সকল গ্রাম শহরে রুপান্তর হচ্ছে। প্রতিটি গ্রামের অধিকাংশ রাস্তা এখন পাকা, বললেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। তিনি আরও বলেন, গ্রামীন যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত হওয়ার কারণে অর্থনৈতিক অবস্থা আরো সচল হচ্ছে। বিশেষ করে আম ও মৎস চাষ, মাংস ও ধান উৎপাদনসহ সবজি বানিজ্যিকভাবে চাষ করে আমাদের দেশের অর্থনীতি আরো গতিশীল হয়েছে। তাই দেশের আপামর মানুষের নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করে অর্থের সঠিক ব্যবহার করে উন্নয়নের গতিধারাকে অব্যাহত রেখে প্রকৌশলীদের কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন সচিব। একইসঙ্গে  নির্মাণ কাজের ঠিকাদার নির্বাচনে এলজিইডির কর্মকর্তাদের আরো যত্নবান হওয়ারও আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার এলজিইডি ভবনে এলজিইডির উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এসব কথা বলেন। এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মো: খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. কাজী আনোয়ারুল হক, যুগ্মসচিব মেজবাহ উদ্দিন ও উপসচিব পর্যায়ের কর্মকর্তারা এবং এলজিইডির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলীরা, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীরাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।  

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়নের বিষয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উত্তরসূরী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছেন। দারিদ্র্য বিমোচনে এলজিইডিকে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করার আহ্বান জানান তিনি।

সভাপতির বক্তব্য এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মোঃ খলিলুর রহমান বলেন, সারা দেশে প্রায় ১৩ হাজার জনবল নিয়ে দেশের সার্বিক উন্নয়নে এলজিইডি কাজ করে যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে এলজিইডিতে ১৫২টি উন্নয়ন প্রকল্প চলমান রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মোতাবেক কাজের গুণগত মান বজায় রেখে সঠিক সময়ে এলজিইডির প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে এবং এলজিইডি উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে কাজ করে যাচ্ছে। পরে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এলজিইডির সদর দপ্তরের এমআইএস, মিডিয়া সেন্টার, জিআইএস, কোয়ালিটি কন্ট্রোল ও ল্যাবরেটরি এবং ডিজাইন ইউনিট পরিদর্শন করেন।

পিডিএসও/রি.মা