প্রধানমন্ত্রীর ইফতার মাহফিল

বাংলাদেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ : ২১ মে ২০১৯, ২১:৪৯ | আপডেট : ২১ মে ২০১৯, ২১:৫৩

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বিভিন্ন শ্রেণির পেশাজীবীদের সঙ্গে ইফতার করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

মঙ্গলবার ইফতারের আগে তিনি বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক, ইলেকট্রনিক মিডিয়ার মালিক ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এতে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের শিক্ষক, চিকিৎসক, কৃষিবিদ, আইনজীবী, ব্যবসায়ী, কবি, সাহিত্যিক, বিশিষ্ট নাগরিক, সাংবাদিক, ক্রীড়াবিদ ছাড়াও বিবিধ শ্রেণি-পেশার নেতারা অংশ নেন।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক, দুর্নীতি এসবের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলছে, তা অব্যাহত থাকবে। আমরা চাই আপনারা যার যার জায়গা থেকে নিজের সাধ্যমতো দেশের মানুষের জন্য কাজ করে যাবেন। আমরা যেন হারানো গৌরব ফিরে পেতে পারি, বাংলাদেশ যেন বিশ্বের মানচিত্রে গৌরবের আসন পেতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, সারা বিশ্বে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ চলছে। বাংলাদেশেও সে প্রচেষ্টা চলছে। কিন্তু আমি আন্তরিক ধন্যবাদ দেব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংস্থাগুলোকে। যাদের জন্য মানুষ নিরাপদে চলছে পারছে, আরামে ঘুমাতে পারছে। আজ আমরা কিন্তু জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলা করতে সক্ষম হয়েছি।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মানুষের সেবা করার সুযোগ পেয়েছি। মানুষের আস্থা, বিশ্বাস পেয়েছি। বাংলাদেশের জনগণের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তারা আমাকে তাদের সেবা করার সুযোগ দিয়েছেন বলে আজকে সর্বক্ষেত্রে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। অপ্রতিরোধ্য এই যাত্রাটা যেন অব্যাহত থাকে সেই কামনাই করি। বাংলাদেশকে আমরা উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। উন্নয়নের ধারাটা অব্যাহত রেখে জাতির পিতা যে স্বপ্ন দেখেছিলেন বাংলাদেশ গড়ার, সেটা যেন আমরা বাস্তবায়ন করতে পারি।

শেখ হাসিনা বলেন, যে বাংলাদেশকে বঙ্গবন্ধু স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছিলেন, আজ সেই বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ। সবাইকে এই প্রচেষ্টা করতে হবে, যাতে করে ধারাবাহিকতা বজায় রেখে দেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে পারি।

বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে খোঁজ-খবরও নেন প্রধানমন্ত্রী। ইফতারের আগে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

মোনাজাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগস্টে শহীদ এবং মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করা হয়।

এর আগে গত রোববার আলেম, ওলামা, মুক্তিযোদ্ধা, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন কমিটি, আত্মীয়-স্বজন ও পরিবার-পরিজন নিয়ে ইফতার করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পিডিএসও/তাজ