স্ত্রীকে হত্যার পর গায়ে আগুন

প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:২৫

অনলাইন ডেস্ক

রাজধানীর দক্ষিণ মুগদায় পারিবারিক কলহের জেরে হাসি বেগম (২৭) নামে এক গৃহবধূকে গলাটিপে হত্যা করেছে তার স্বামী। পরে খুনের আলামত মুছে ফেলতে মরদেহে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

আশপাশের লোকজন আগুন দেখে নিভাতে গেলে ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য তার স্বামী কমল হোসেন (৩০) পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু স্থানীয় লোকজন তাকে ধরে রেখে পুলিশকে খবর দেয়। ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ প্রাথমিক তদন্ত শেষ করে কমল হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।

বুধবার সকালে দক্ষিণ মুগদার ব্যাংক কলোনি এলাকা থেকে ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুগদা থানার ওসি প্রণয় কুমার সাহা। 

মুগদা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা বলেন, ৮ মাস আগে হাসি ও কমলের বিয়ে হয়। এই দম্পতির দুই জনেরই এটা দ্বিতীয় বিয়ে ছিল। তাদের নিজেদের কোনও সন্তান ছিল না। কিন্তু নিহত’র আগের পক্ষের একটা মেয়ে ছিল। তাদের পারিবারিক জীবনে কলহ ছিল। প্রতিদিনের মতো আজও সেই কলহের এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। রাগের মাথায় গলায় টিপ দিলে পরে হাসি মারা যায় বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন গ্রেপ্তার কমল হোসেন।

তিনি আরও বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বাবা মুগদা থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলা নং ৭২২।

পিডিএসও/রি.মা