গোলটেবিল আলোচনায় বিশিষ্টজনেরা

নিরাপদ সড়কে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা দ্রুত বাস্তবায়ন দাবি

প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:৪১

অনলাইন ডেস্ক

নিরাপদ সড়ক ও মাদক সমস্যা সমাধানের জন্য গৃহীত আইনের বাস্তবায়নসহ এ বিষয়ে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনা দ্রুত বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্টজনেরা।

সোমবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ১৪ দল আয়োজিত গোলটেবিল আলোচনায় এ দাবি জানানো হয়।

‘নিরাপদ সড়ক ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠন’ শীর্ষক এ গোলটেবিল আলোচনায় অংশ নেন রাজনীতিবিদ, মন্ত্রী, আইনজীবী, পুলিশ, পরিবহন মালিক, সাংবাদিক, সরকারি কর্মকর্তা, ১৪ দলের সদস্যসহ দেশের বিশিষ্টজনেরা।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। সভায় সমসাময়িক এ সমস্যা নিয়ে মুক্ত আলোচনা করেন আলোচকরা। এতে সংকট কাটিয়ে ওঠার নানা সুপারিশ উঠে আসে।

সভায় আলোচকরা বিগত দিনে পরিবহন ও সড়কের অনিয়ম তুলে ধরে বলেন, কোম্পানি গঠন করে পরিবহন খাতকে দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত করা হয়েছিল।

জবাবে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বলেন, তার সময়ে পরিবহন সেক্টরে অরাজকতা দূর করতে নেয়া পদক্ষেপ খুব প্রশংসিত হয়।

দাগী আসামি বাদ দিয়ে কারাগারে আটক সব রাজবন্দির মুক্তি দিয়ে দেশ গঠনে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সুপারিশ জানান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা।

সড়কে বিশৃঙ্খলা ও নৈরাজ্য আছে জানিয়ে সড়ক দুর্ঘটনা ক্ষেত্রে আইনের সংস্করণ করারও সুপারিশ জানান তিনি।

এসময় সরকারি কর্মকর্তারা বলেন, পরিবহন সংকট কাটিয়ে উঠতে বিভিন্ন রুটে আরো নতুন যান নামানোর প্রক্রিয়া চলমান। তবে ছোট ধীরগতির যানগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। আরো ১৯টি প্রশিক্ষণ স্কুলের মাধ্যমে দক্ষ চালক তৈরি করা হচ্ছে।

সাংবাদিকরা সংকট তুলে ধরে সমাধানের বিভিন্ন দিক নিয়ে কথা বলেন জানিয়ে তারা বলেন, জেব্রা ক্রসিং দেখা যায় না, বাস স্টপেজ নির্দিষ্ট করা নেই। কোনো নিয়মের তোয়াক্কা করে না কেউ।

আগামীতে বড় উদযাপনে সবাইকে সঙ্গে রাখা গেলেও কোনো দুর্নীতিবাজকে ছাড় দেয়া যাবে না মন্তব্য করে নৌপ্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বিআরটিসি, বিআরটিএ’র বিগত দিনের দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছিল। অতিতে দেশ বিরোধীদের তৈরি গহ্বরে এখন দেশ পতিত হয়েছে।

ড্রাইভার তৈরির ক্ষেত্রে ভর্তুকি প্রয়োজন জানিয়ে সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেন, তিনি চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করছেন। চালকদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়ে সংকট সমাধান সম্ভব নয়। ৪৮ বছর ধরে পরিবহন ক্ষেত্রে জড়িত থেকে সড়ক থেকে চাঁদাবাজি বন্ধ করার চেষ্টা করেছেন।

নৌপরিবহনের ক্ষেত্রে একটা শৃঙ্খলা ফিরে এসেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, আইনবিরোধী কাজ করতে দেবেন না। এসময় তিনি প্রশ্ন করেন, এতটাকা জরিমানা কি করে দেবে আসামি পরিবার?

পরে নিরাপদ সড়কের জন্য সচেতনতা গড়তে পাঠ্য বইতে অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশসহ পরিবহন ক্ষেত্রে সব অনিয়ম বন্ধ করতে আলোচনা থেকে যে সমস্যা সমাধানের পথনির্দেশনা উঠে এসেছে তা সংশ্লিষ্ট জায়গায় পৌঁছে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

এসময় প্রধানমন্ত্রীর দিকনির্দেশনা মেনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

পিডিএসও/রি.মা