সড়ক অবরোধের চেষ্টা

আশুলিয়ায় ৮ পোশাক কারখানায় ছুটি

প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৯ | আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১৩:৫২

অনলাইন ডেস্ক

পোশাক শ্রমিকদের বেতন বাড়ানোর ঘোষণার পরও আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের কয়েকটি কারখানার পোশাক শ্রমিকদের সড়ক অবরোধের চেষ্টা করার খবর পাওয়া গেছে। শিল্প পুলিশ জানিয়েছে, এমতাবস্থায় জামগড়া, নরসিংহপুর ও বেরন এলাকার অন্তত আটটি কারখানায় একদিনের ছুটি ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ।

গত নভেম্বরে ঘোষিত ন্যূনতম মজুরি কাঠামোর কয়েকটি গ্রেড নিয়ে আপত্তি জানিয়ে গত ৬ জানুয়ারি থেকে কাজ বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করে আসছিল ঢাকা ও আশপাশের বিভিন্ন কারখানার শ্রমিকরা। এরই প্রেক্ষাপটে মালিক-শ্রমিক ও প্রশাসনের প্রতিনিধিদের নিয়ে গঠিত ত্রিপক্ষীয় কমিটি গতকাল রোববার ছয়টি গ্রেড সংশোধন করে বেতন বাড়ানোর ঘোষণা দেয়। ওই ঘোষণার পর আজ সোমবার সকাল থেকেই সাভার ও আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের গার্মেন্টগুলোর শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়। কিন্তু বেলা ৯টার দিকে কয়েকটি কারখানার শ্রমিকরা বাইরে এসে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া শিল্প পুলিশ ১-এর পরিদর্শক মাহমুদুর রহমান জানান, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের আশুলিয়ায় জামগড়া, নরসিংহপুর ও বেরন এলাকায় হামিম গ্রুপ, শারমিন গ্রুপ, এনভয় গ্রুপ ও উইনডিসহ বেশ কয়েকটি কারখানার শ্রমিকরা কাজে যোগ দেওয়ার পর বেলা ৯টার দিকে বেরিয়ে আসে। তিনি আরো জানান, ওই কারখানাগুলোতে কর্তৃপক্ষ একদিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে।

জামগড়ার এনভয় কারখানার শ্রমিকরা জানান, বেতন বেড়েছে কারো এক হাজার টাকা, কারো ১২০০ টাকা। কিন্তু আমাদের দাবি ছিল, মূল বেতন বাড়াতে হবে। তা বাড়েনি। মূল বেতন বাড়লেই কেবল ওভার টাইম বা অন্যান্য সুযোগ বাড়ে। কিন্তু তা হয়নি। এজন্যই তাদের ক্ষোভ। শ্রমিকরা আরো জানান, তারা আজ কাজ শুরু করেছিলেন। কিন্তু বাইরে থেকে অন্য শ্রমিকরা এসে তাদের ডাকে। ডাক শুনে তারা কাজ ফেলে চলে আসেন।

আজ পুরো আশুলিয়া এলাকায় বারবার পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং হচ্ছে। মাইকিংয়ে শ্রমিকদের উদ্দেশে বলা হচ্ছে, সরকার নতুন বেতন কাঠামো করেছেন। এখন যেসব শ্রমিক কাজ করবেন, তারা শান্তিপূর্ণভাবে কাজ করুন। কেউ কাজ না করতে চাইলে বের হয়ে যান। কাজে বিঘ্ন ঘটাবেন না।

পরিদর্শক মাহমুদ বলেন, সকালে শ্রমিকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে কারখানায় কাজে যোগ দেয়। কিন্তু আটটি কারখানার শ্রমিকরা বেরিয়ে এসে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শিল্পাঞ্চলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে বলে জানান তিনি।

পিডিএসও/হেলাল