সুষ্ঠু ভোট আয়োজনে প্রস্তুত ইসি

বন্ধ হচ্ছে সরকারি সুবিধাভোগীদের সব ধরনের সেবা

প্রকাশ : ১৫ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:১২

গাজী শাহনেওয়াজ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট সুষ্ঠুভাবে করতে তৎপর হয়ে উঠেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। প্রায় প্রতিদিনই বিভিন্ন বৈঠক, রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা এবং বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে চিঠি পাঠানো হচ্ছে। নির্বাচনকালে সব ধরনের উন্নয়ন প্রকল্প বন্ধের নির্দেশনা পাঠাতেও প্রস্তাব তৈরি করেছে কমিশন। দু-একদিনের মধ্যে কমিশনের অনুমতি সাপেক্ষে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোতে চিঠি পাঠাবে ইসি। একইসঙ্গে নির্বাচনের পুনঃতফসিল ঘোষণার বিষয়টি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে অবহিত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট এবং দুর্যোগ ব্যবস্থা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়কে সব ধরনের প্রকল্প এবং অনুদান বন্ধ রাখতে চিঠি দিচ্ছে ইসি। তফসিল ঘোষণার দিন থেকে ফলাফলের গেজেট প্রকাশের আগ পর্যন্ত কোনো ধরনের অনুদান ঘোষণা বা বরাদ্দ প্রদান ও অর্থ ছাড় না দিতে চিঠিতে অনুরোধ করা হয়েছে। নির্বাচন প্রভাবমুক্ত রাখতেই এ নির্দেশ দিয়েছে ইসি।

চিঠির নিদেশনায় বলা হচ্ছে, কোনো সরকারি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি বা গোষ্ঠী বা প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে কোনো অনুদান ঘোষণা বা বরাদ্দ কিংবা ছাড় দিতে পারবে না। রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীও আচরণ বিধিমালা-২০০৮ এর বিধি ৩ অনুযায়ী, এটি দ-নীয় অপরাধ। একইসঙ্গে নির্বাচনের ফলের গেজেট প্রকাশের আগ পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় কোনো প্রার্থী সিটি করপোরেশন, পৌরসভা ও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের সম্পত্তি, তথ্য অফিস, যানবাহন, টেলিফোন, ওয়াকিটকি বা অন্য কোনো সুযোগ-সুবিধা নির্বাচনের কাজে ব্যবহার করতে পারবেন না।

প্রচারসামগ্রী সরাতে সময় আরো তিন দিন

মার্কেট, রাস্তাঘাট, যানবাহন, বিভিন্ন সরকারি- বেসরকারি স্থাপনাসহ বিভিন্ন জায়গায় যাদের নামে পোস্টার, লিফলেট, ব্যানার, ফেস্টুনসহ প্রচার সামগ্রী রয়েছে, তাদেরকে এসব তুলে ফেলতে আরো তিন দিন সময় দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গতকালের মধ্যে নিজ খরচে এসব তুলে ফেলার নির্দেশনা ছিল। প্রার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকালই এই সময় ইসি আরো তিন দিন বাড়াল।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, যেসব ব্যক্তি বা যৌথ মালিকানাধীন ভবন, প্রতিষ্ঠান, মার্কেট, যানবাহন ও স্থাপনায় প্রচার সামগ্রী রয়েছে সংশ্লিষ্ট মালিককে সেসব প্রচারসামগ্রী স্ব স্ব উদ্যোগ ও নিজ খরচে অপসারণ করতে হবে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এগুলো অপসারণ না করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

বিশ্ব এজতেমার জোর সম্মেলন পেছাতে চিঠি দিচ্ছে ইসি

এদিকে, তাবলিগ জামাতের সবচেয়ে বড়জোর সম্মেলন বিশ্ব এজতেমা পেছাতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যালয় কাকরাইলে একটি চিঠি পাঠাচ্ছে ইসি। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগামী ১৫-২০ জানুয়ারি এবং ২৫-২৭ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্যায়ের সম্মেলন হওয়ার কথা। কিন্তু জাতীয় নির্বাচনের ভোটের তারিখ পুনঃনির্ধারিত হওয়ায় ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ কিংবা নির্বাচন সম্পন্ন হওয়ার পর ১ জানুয়ারি পরবর্তী যেকোনো সুবিধাজনক সময়ে জোর সম্মেলনসহ ধর্মীয় কার্যক্রম আয়োজনে সংগঠনটিকে পত্র দিচ্ছে। কারণ গাজীপুরের রিটার্নিং অফিসারের অনুরোধে কমিশন এ পত্র দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

পিডিএসও/হেলাল