প্রার্থীদের সমান সুযোগ নিশ্চিতের আহ্বান সিইসির

প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১২:০৯ | আপডেট : ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ১৩:২০

অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচনে সব প্রার্থীর অধিকার যে সমান, সে বিষয়টি মাথায় রেখে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের নিরপেক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। সেইসঙ্গে কেও যেন অতিরিক্ত সুযোগ না পায়, আচরণবিধি ভঙ্গ করে কেউ যেন পার পেয়ে না যায়, সে দিকেও নজর দিতে তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

৬৪ জেলার রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ব্রিফ করার পরদিন বুধবার নির্বাচন ভবনের মিলনায়তনে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের নির্বাচনী দায়িত্ব পালন নিয়ে দিকনির্দেশনা দেন সিইসি। 

নূরুল হুদা বলেন, যে যে অবস্থানে থাকুক না কেন, অত্যন্ত নিরপেক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সকল প্রার্থীকে সমান সুযোগ সুবিধা দিতে হবে। সকল প্রার্থীকে প্রার্থী হিসেবে বিবেচনা করতে হবে। আইনগতভাবে যেন কেউ কোনো কিছু থেকে বঞ্চিত না হয়, কেউ যেন অতিরিক্ত সুযোগ সুবিধা না পায়—সে ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।

প্রার্থীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখার পরামর্শ দিয়ে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সিইসি বলেন, আইনের মাধ্যমে প্রার্থীরা কী কী সুযোগ-সুবিধা পেতে পারেন, তা তাদের বোঝাতে হবে। তাদের সহযোগিতা নিয়েই নির্বাচন পরিচালনা করতে হবে। অত্যন্ত নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে নির্বাচন পরিচালনা করতে হবে।

পুনঃনির্ধারিত তফসিল অনুযায়ী ৩০ ডিসেম্বর ভোট করতে সব প্রস্তুতি এগিয়ে নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। এর অংশ হিসেবে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সামনে ধারাবাহিক এই ব্রিফিংয়ে আসছেন সিইসি। তবে নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়ে আসা জাতীয় এক্যফ্রন্ট ও বিএনপি বলে আসছে, ভোটের মাঠে সবার জন্য সমান সুযোগ (লেভেল প্লেইং ফিল্ড) এখনো তৈরি হয়নি। তাদের অভিযোগ, ক্ষমতাসীনরা একদিকে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচার চালাচ্ছে, অন্যদিকে সারাদেশে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার-হয়রানি করা হচ্ছে।

এ প্রেক্ষাপটে কেউ যেন আচরণবিধি ভঙ্গ না করে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখার পরামর্শ দিয়ে সহকারী রিটার্রিনং কর্মকর্তাদের উদ্দেশে নূরুল হুদা বলেন, নির্বাচন পরিচালনার কেন্দ্রে আপনারা অবস্থান করবেন, তাই আপনাদের দায়িত্ব অনেক বেশি। নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার দায়িত্ব আপনাদের। তিনি বলেন, পরিপত্র, আদেশ, চিঠি এবং গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশের ওপর ভিত্তি করেই যেন নির্বাচন পরিচালিত হয়, সেটি আপনাদের আয়ত্ত করতে হবে।

পিডিএসও/হেলাল