ফিটনেসবিহীন গাড়ি এবার সড়কে নয়

প্রকাশ : ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১০:০৭ | আপডেট : ১৪ আগস্ট ২০১৮, ১২:০৯

হাসান ইমন

অগ্রিম টিকিটে আগামীকাল থেকে সড়কপথে ঈদযাত্রা শুরু হবে মানুষের। তবে মূলস্রোত নামবে আগামী সোমবার থেকে। সেদিন শেষ কর্মদিবসে শুরু হবে মূল ঈদযাত্রা। বিগত বছরগুলোর মতো এবারও সড়কপথে ঈদযাত্রা নিয়ে শঙ্কিত মানুষ। তবে ঈদযাত্রা স্বস্তির করতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বিশেষ করে খানাখন্দে রূপ নেওয়া সড়ক ও মহাসড়কগুলো সংস্কার শেষ করে এনেছে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর। বিশেষ করে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কিছুতেই এবার ফিটনেসবিহীন গাড়ি পথে নামাতে দিতে নারাজ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

তবে সড়কপথে এবারও ঈদযাত্রা নিয়ে শঙ্কাবোধ করছে মানুষ। পরিবহন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঈদে সবচেয়ে বেশি মানুষ যাতায়াত করে সড়কপথে। সড়কপথের এসব যাত্রীর সবচেয়ে বড় দুশ্চিন্তা যানজট। ভাঙাচোরা সড়কও মানুষকে ভোগান্তিতে ফেলে। দুর্ভোগ আরো বাড়িয়ে তোলে লক্কড়ঝক্কড় বাস। ঈদে যাত্রীর চাপের সুযোগ নিয়ে ঢাকার বিভিন্ন রুটে চলাচল করা বাসগুলোও বিভিন্ন দূরপাল্লার গন্তব্যে যাতায়াত করে। বিভিন্ন গ্যারেজে পড়ে থাকা ফিটনেসবিহীন বাস রং করেও নামানো হয় মহাসড়কে।

এসব বিষয় আমলে নিয়েই এবার ঈদযাত্রার প্রস্তুতি নিচ্ছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। সড়কের শৃঙ্খলা রক্ষা, যানজট ও দুর্ঘটনা কমানোকেই অগ্রাধিকার দিচ্ছেন বিভাগের কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, মহাসড়কে নির্বিঘ্নে চলাচলের জন্য সড়কগুলোতে এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শেষ করে আনা হয়েছে। পাশাপাশি ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-টাঙ্গাইল, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া-আরিচা, ঢাকা-সিলেট, ঢাকা-মাওয়াসহ সব জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে যানজট নিরসনে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

সওজ অধিদফতরের কর্মকর্তারা জানান, বাস টার্মিনালের শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ), ঢাকা মহানগর পুলিশ ভিজিল্যান্স টিম গঠন করা হয়েছে। ফিটনেসবিহীন যানবাহন চলাচল, রাস্তার ওপর পার্কিং, ২২টি জাতীয় মহাসড়কে থ্রি-হুইলার চলাচলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হাইওয়ে পুলিশ, র‌্যাব, জেলা প্রশাসন, সড়ক বিভাগের একাধিক দল দুর্ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে সৃষ্ট যানজট রোধে কাজ করবে। এসবের বাইরে অস্থায়ী বা ভাসমান বাজার অপসারণ, মহাসড়কের অপব্যবহার রোধ, এক্সেল লোড নিয়ন্ত্রণ, টোল প্লাজার সব বুথ চালু রাখা, সার্বক্ষণিক সিএনজি স্টেশন চালু, বড় ধরনের দুর্ঘটনা মোকাবিলায় হেলিকপ্টার ব্যবহারসহ আরো বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম বলেন, ঈদে সাধারণ মানুষের যাতায়াত নির্বিঘ্ন ও স্বস্তিদায়ক করতে প্রতিবারই আমরা বিশেষ উদ্যোগ নিই। এবারও ব্যতিক্রম হচ্ছে না। মূল ঈদযাত্রার আগেই সব সড়ক-মহাসড়কের প্রয়োজনীয় মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শেষ করা হবে। একইভাবে সড়কের যানজট-বিশৃঙ্খলা-দুর্ঘটনা এড়াতেও আমরা বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছি।

বিশেষ করে প্রতি বছরই যাত্রী চাপ বাড়লে মহাসড়কে নামে ফিটনেসহীন যানবাহন। যানজট তীব্র আকার নেয়। এবার অবশ্য ঈদযাত্রায় মহাসড়কে ফিটনেসহীন যানবাহন ঠেকানোর ঘোষণা দিয়েছেন পুলিশ প্রধান জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি বলেন, ঘরমুখো মানুষের ঈদযাত্রা নির্বিঘ্নে করতে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মহাসড়কে ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলতে পারবে না ও লাইসেন্সবিহীন কোনো চালক সড়ক মহাসড়কে গাড়ি চালাতে পারবে না।

এই বিষয়ে সওজের অতিরিক্তি প্রধান প্রকৌশলী আবুল কাশেম ভূঞা বলেন, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অতিরিক্ত বৃষ্টি হয়েছে। এর সঙ্গে কিছু জেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। এতে ভাঙাচোরার সঙ্গে ভালো সড়কও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তবে সড়ক-মহাসড়ক ঠিক রাখতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন মাঠপর্যায়ের প্রকৌশলীরা। এই কর্মকর্তা আরো বলেন, বড় ধরনের দুর্ভোগ কমাতে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলোয় অস্থায়ী ভিত্তিতে ইট-বালু দিয়ে সংস্কার হচ্ছে। যাতে ঈদে ঘুরমুখো মানুষের দুর্ভোগ কিছুটা লাঘব হয়।

পিডিএসও/হেলাল