‘কোটা সংস্কার হবে, তবে তা হাইকোর্টের রায় অম্যান্য করে না’

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৮, ১৯:৪৬

অনলাইন ডেস্ক

সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা হাইকোর্টের রায়েই সংরক্ষিত রয়েছে। হাইকোর্টের রায় তো লঙ্ঘন করা সম্ভব না। এটা করলে তো আদালত অবমাননায় পড়ে যাবো। এটা কেউ করতে পারবে না। কোটা সংস্কার হবে, তবে তা হাইকোর্টের রায় অম্যান্য করে না। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার বিকেলে দশম জাতীয় সংসদের ২১তম অধিবেশনের সমাপনী বক্তৃতায় সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একথা বলেন।
শেখ হাসিনা বলেন, তবে যারা আন্দোলনের নামে ভিসির বাড়ি ভাঙচুর করেছে, আগুন দিয়েছে তাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। তাদের তো ছাড়া যায় না, ছাড় দেবো না। যতই আন্দোলন করুক। এটা বরদাশত করা যায় না। আন্দোলনের নামে যারা শিক্ষাঙ্গণে সহিংসা করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোটা নিয়ে আন্দোলন। এই আন্দোলনে তারা কি চায়? বারবার জিজ্ঞেস করা হয়েছে, কিন্তু সঠিকভাবে তা বলতে পারে না। আমাদের মুক্তিযোদ্ধা বিষয় মন্ত্রী গতকালই বলেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা হাইকোর্টের রায়ে রয়ে গেছে। হাইকোর্টের রায় আছে যে মুক্তিযোদ্ধাদের কোটা ওইভাবে সংরক্ষণ থাকবে। আমরা হাইকোর্টের রায় কীভাবে লঙ্ঘন করবো।

তিনি বলেন, কীভাবে হাইকোর্টের রায় বাদ করবো। সেটা তো আমরা করতে পারছি না। আমি যেটা করে দিয়েছি, কোটা যেটাই থাকুক কোটা পূরণের সঙ্গে সঙ্গে যে জায়গায় খালি থাকবে সেখানে মেধাতালিকা থেকে পূরণ করা হবে। গত কয়েক বছর ধরে এই প্রক্রিয়া চালু আছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদের বিরোধী দলসহ সব দলই অংশ নেবে। বাংলাদেশের এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে দেশকে বিশ্বের দরবারে যে মর্যাদার আসনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, সেটা ধরে রেখে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা হবে।
এর আগে সমাপনী বক্তব্যে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের সহানুভূতির দৃষ্টিতে দেখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানান।

পিডিএসও/রিহাব