নিবন্ধন পায়নি ‘তৃণমূল বিএনপি’ : ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলন বাদ

প্রকাশ : ১২ জুন ২০১৮, ১৮:২৮

অনলাইন ডেস্ক

বিএনপির সাবেক নেতা নাজমুল হুদার ‘তৃণমূল বিএনপি’ নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নিবন্ধন পায়নি। এদিকে নিবন্ধন বাতিল হয়েছে ‘ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলন’র। গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে নিবন্ধন পাওয় এই দলটি কোনো ধরনের প্রতিবেদন জমা ও প্রয়োজনীয় শর্তাদি প্রতিপালনে ব্যর্থ হওয়ায় মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনের সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে কমিশনের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানান। জানা যায়, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৮ সালের ৮ অক্টোবর প্রশিকার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান কাজী ফারুক আহমেদের নেতৃত্বে এই ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের আত্মপ্রকাশ ঘটে।
সভা শেষে হেলালুদ্দীন বলেন, ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের কাছে বারবার কমিশন প্রতিবেদন চেয়েছে; তারা তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে। পাশাপাশি নিবন্ধন শর্তও প্রতিপালন করছে না দলটি। তাই কমিশন দলটির নিবন্ধন বাতিল ঘোষণা করেছে। তিনি জানান, একাদশ সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নতুন দলগুলোকে নিবন্ধন দেওয়ার সুযোগের পাশাপাশি বিদ্যমান নিবন্ধিত দলগুলোর কার্যক্রমও খতিয়ে দেখছে ইসি। এরই ধারবাকিতায় নিবন্ধন গেল ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলনের। 
ইসি সচিব জানান, নির্ধারিত সময়ে নিবন্ধন আবেদন না করায় নাজমুল হুদার ‘তৃণমূল বিএনপি’কে নিবন্ধন দেয়া হয়নি। দলটি গত বছরের মার্চে ইসিতে নিবন্ধন আবেদন করে। কিন্তু কমিশন নিবন্ধন আবেদনের বিজ্ঞপ্তিতে দেয় অক্টোবরে। সেক্ষেত্রে নির্ধারিত ফি, গঠনতন্ত্র ও আনুষঙ্গিক দলিলাদিসহ নতুন করে আবেদন করতে ব্যর্থ হয় দলটি। কিন্তু আদালতে শরণাপন্ন হন নাজমুল হুদা।
হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, নির্ধারিত সময়ের পরে আবেদনটি আসায় কমিশন তা বাতিল করে দেয়। পরে তিনি (নাজমুল হুদা) আদালতে যান এবং মহামান্য হাইকোর্ট কমিশনকে বিষয়টি বিবেচনা করতে বলেন। কমিশন আদেশটি বিবেচনায় নিয়ে দলটির কাগজপত্র দেখেন। যেহেতু আবেদনটি নির্ধারিত সময়ে আসেনি এবং সরকারনির্ধারিত ফি জমা দেননি। তার আবেদন যাচাই-বাছাই করে আরো দেখা গেছে নিবন্ধন দেওয়ার মতো তথ্য সেখানে নেই। তাই কমিশন তৃণমূল বিএনপির নিবন্ধন আবেদন নাকচ করে দিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

পিডিএসও/মুস্তাফিজ