পিকআপ-ট্রাকের দখলে যাচ্ছে অধিকাংশ সড়ক

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৬:৩৯

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর তেজগাঁও ট্রাকস্ট্যান্ড, মহাখালী বাস টার্মিনালের সামনের রাস্তা ও তেজগাঁও শিল্প এলাকার সড়কগুলো আবারও দখল নিয়েছেন বাস-ট্রাক, পিকআপ-ভ্যানচালকরা। এছাড়াও মিরপুরে কালশী ইসলামিয়া উচ্চবিদ্যালয়ে প্রবেশের দুটি গেট দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছে ট্রাক আর পিকআপ-ভ্যান। এতে সড়কটি পরিণত হয়েছে স্ট্যান্ডে।

রাত হলেই সড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করছেন। এতে ভোগান্তিতে পড়ছে রাতে চলাচলরত পথচারী ও যানবাহন। দিনেও এমন ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। অথচ ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে তেজগাঁও ট্রাকস্ট্যান্ড এলাকার রাস্তা পার্কিংমুক্ত ঘোষণা করেছিলেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র প্রয়াত আনিসুল হক। তার মৃত্যুর পর ওই রাস্তা আবারও দখলে চলে যাচ্ছে।

গত বুধবার রাত ১টায় তেজগাঁও এলাকায় দেখা যায়, মূল সড়কের দুই পাশে কোথাও এক লাইন, কোথাও দুই লাইনে করে পার্কিং করা হয়েছে শত শত ট্রাক ও বাস। এতে ভোগান্তি হচ্ছে রাতে চলাচলরত যানবাহনের। বিশেষ করে মহাখালী থেকে মগবাজার ময়মনসিংহ রোডে শাহ ফাতেহ আলী, একতা, নিরালা, সোনার বাংলা, মহানগর, বিনিময়, নিরালা সুপার পরিবহনসহ ময়মনসিংহ, শেরপুর, জামালপুরগামী বাসগুলো মূল সড়কে দুই লাইনে দাঁড়িয়েছে। এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে ঝামেলা পোহাতে হয়। এ কারণে গভীর রাতেও দীর্ঘ লাইন তৈরি হয়।

একই অবস্থা তেজগাঁও ট্রাকস্ট্যান্ডের সামনের সড়কে। শত শত ট্রাক সড়কের দুই পাশে দুই লাইনে দাঁড়িয়ে আছে। এ দুই এলাকার রাস্তা দিয়ে কোনো রকম একটি বাস কিংবা গাড়ি পার হতে পারলেও নাবিস্কো থেকে গুলশান লিংক রোডসহ শিল্পাঞ্চল এলাকার রাস্তাগুলোতে এমনভাবে গাড়ি রাখা হয়েছে যে রিকশা চলাচল তো দূরের কথা মানুষ চলাচলেরও কোনো জায়গা নেই।

বাংলাদেশ ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক রুস্তম আলী খান জানান, মূল সড়ক থেকে ট্রাক সরানো গেলেও জায়গা না থাকায় আশপাশের সড়কে চালকরা ট্রাক রাখছেন। চালকদের তারা সেখান থেকে সরাতে পারছেন না। তিনি বলেন, আমরাও অনেক চেষ্টা করেছি সড়কটা ক্লিয়ার করার। কিন্তু জায়গা না দিলে তারা যেতে চান না। আমাদের বলেছিলেন গাবতলীতে একটা ট্রাকস্ট্যান্ড করে দেবে। সেটারও কোনো খবর নেই। রাজধানীতে পরিকল্পিত কোনো ট্রাক টার্মিনাল না থাকার কারণেই এ অবস্থা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন রুস্তম আলী।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘রাস্তাগুলো আবার অবৈধ দখলে চলে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে আমরাও চিন্তিত। আমরাও মাঝে মধ্যে দেখি সেখানে আড়ালে আবডালে রাখে। আবার আমরা যখন একটু নড়েচড়ে বসি, পুলিশকে বলি তখন তারা চলে যায়। এই লুকোচুরির মতো আর কী। আমরা আবারও পুলিশের ট্রাফিক বিভাগকে বিষয়টি জানাব। ট্রাকস্ট্যান্ড সরিয়ে গাবতলীতে নেওয়ার উদ্যোগের কোনো অগ্রগতি নেই।’

এদিকে রাজধানীর মিরপুরে কালশী ইসলামিয়া উচ্চবিদ্যালয়ে প্রবেশের দুই গেটের সামনের প্রবেশপথ দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছে ট্রাক আর পিকআপ-ভ্যান। বর্তমানে সড়কটি স্ট্যান্ডে পরিণত হয়েছে। স্কুলের শিক্ষার্থীরা এই সড়ক ব্যবহার করতে পারছে না। ফলে প্রধান সড়ক ঘুরে উত্তরের সড়ক দিয়েই যাতায়াত করতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। প্রধান সড়কে অনবরত গাড়ি চলাচলের কারণে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা।

পিডিএসও/তাজ