বিরক্তিকর সহকর্মীদের সামলাবেন যেভাবে

প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৭, ১৪:৫৯ | আপডেট : ১৫ জুলাই ২০১৭, ১৫:০৫

অনলাইন ডেস্ক

আপনার সহকর্মীরাই আপনার চাকরির ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো কিংবা খারাপ অংশ। তাদের মধ্যে যারা ভালো, নিমিষেই আনন্দময় করে তুলতে পারে আপনার সময়গুলো। অপরদিকে, যারা অপেক্ষাকৃত বিরক্তিকর তারা হতে পারে আপনার ক্ষতির কারণ। কিন্তু হুট করেই তো যেকোনো চাকরি ছেড়ে দেওয়া যায় না। এক্ষেত্রে কিছু টিপস অনুসরণ করে খুব সহজেই বিরক্তিকর সহকর্মীদের বশে আনা যায়। প্রতিবেদনটি সে বিষয়েই আপনাকে স্বচ্ছ ধারণা দেবে। চলুন জেনে আসা যাক এই বিষয়ে। 

আপনাকে পীড়া দিচ্ছে এমন ব্যবহার সনাক্ত করুন

লেখক ও ক্যারিয়ার বিশেষজ্ঞ ডরোথি ট্যানাহিল মোরান বলেন, ‘কারো নির্দিষ্ট কোনো ব্যবহার যদি আপনাকে বিরক্ত করে, তবে সেটি সনাক্ত করুন। আপনার কাছে নিশ্চয়ই কোনো পরিকল্পনা আছে সেখান থেকে বের হওয়ার’। ডরোথি আরো বলেন, ‘আপনি যদি কোনো সমস্যাই বের করতে না পারেন, তবে সেটি সমাধান করা বেশ দুষ্কর।’

সাধারণ কিছু বৈশিষ্ট্য খুঁজে বের করুন:

যে মানুষটি আপনাকে খুব বেশি বিরক্ত করছে, তার সাথেও হয়তো আপনার কোনো বৈশিষ্ট্য মিলে যায় কখনও কখনও। এমনই সাধারণ কিছু বৈশিষ্ট্য বের করুন এবং সে ব্যাপারে একে অপরের সাথে আলোচনা করুন। চা কিংবা কফি খেতে খেতেই এমন আলাপ সেরে নেওয়া যায়।

অন্য কারো সঙ্গে বৃথা আলাপচারিতা বন্ধ করুন:

হতেই পারে কেউ আপনাকে খুব যন্ত্রণা দিচ্ছে, এক্ষেত্রে অন্য কারো সাথে তার ব্যাপারে আলোচনা থেকে বিরত থাকুন। মনে রাখবেন, এহেন আলোচনায় আপনি কিন্তু তৃতীয় পক্ষের কাছে ছোট হচ্ছেন। কী দরকার শুধু শুধু ঝামেলা বাড়িয়ে?

কাজের বাইরে অন্য গল্পের প্রতি ‘না’ বলুন:

আপনার যেকোনো সহকর্মী যদি কাজের সময় বাইরের কোনো আলাপে মগ্ন হতে চায় আপনার সাথে, তবে তাকে খুব ভদ্রভাবে মানা করুন। কঠোর হওয়ার কোনো কারণ নেই। কর্মক্ষেত্রে যত গা বাঁচিয়ে চলতে পারবেন, তত ভালো। 

ইতিবাচক ব্যবহার করুন:

কর্মক্ষেত্রে যে আপনার সাথে যেমন ব্যবহার করুক না কেন, আপনি নিজ ব্যক্তিত্বে অটুট থাকুন। কোনো দরকার নেই অন্য মানুষের সঙ্গে বৃথা ঝগড়া-বিবাদে জড়ানোর। আপনি যত ভালো কাজ করবেন, তত সবাই আপনার প্রতি আকৃষ্ট হবে। বিরক্তিকর মানুষদের পাত্তা দেওয়ার সময় কোথায়? 

পিডিএসও/রিহাব